সাক্ষাৎ 'মৃত্যুদূত' হয়ে যেন মানব সভ্যতাকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে করোনা ভাইরাস। মানুষকে সচেতন করতে শহরের অলি-গলিতে ঘুরে বেড়ালেন 'যমরাজ'! দিলেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার বার্তা। বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর ঘটনা।

আরও পড়ুন: দিল্লি সফরে 'বিপদ' বাড়ছে, করোনা সংক্রমিত আরও এক আরপিএফ জওয়ান

করোনা আতঙ্কে থরহরিকম্প গোটা রাজ্য। কিন্তু লকডাউন মেনে ঘরবন্দি থাকতে চাইছেন না অনেকেই। নানা অছিলায় বেরিয়ে পড়ছেন রাস্তায়। ভিড় জমছে পাড়ার মোড়ে, চায়ের দোকানে। অবাধ্য জনতাকে ঘরমুখী করতে দিয়ে নাজেহাল অবস্থা পুলিশ ও প্রশাসনের। ব্যতিক্রম নয় বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর শহরও। এই যখন পরিস্থিতি, তখন শহরের রাস্তায় দেখা মিলল স্বয়ং যমরাজের। 

বিষ্ণুপুর শহরের রঘুনাথ সয়ের এলাকায় থাকেন বছর ষাটেকের কৃষ্ণকান্ত লোহার। সাতসকালে যমরাজ সেজে রাস্তায় বেরিয়েছিলেন তিনি। হাতে ছিল গদা। ভিড় দেখলেই শোনা যাচ্ছিল তাঁর অট্টহাসি। শুধু কি তাই! গৃহস্থের বাড়ির দরজায় কড়া নেড়েও প্রয়োজন ছাড়া বাইরে না বেরনোর বার্তা দিলেন 'মৃত্যুপুরীর রাজা'। মানুষের কি হুঁশ ফিরবে? এখন সেটাই দেখার। 

আরও পড়ুন: বিজেপি কার্যালয় থেকে উদ্ধার চালের বস্তা,রেশন ডিলারকে শোকজ

আরও পড়ুন:যা নেবে, তাই 'পঞ্চাশ টাকা', করোনা রুখতে লকডাউনে নয়া উদ্যোগ

উল্লেখ্য, করোনা মোকাবিলায় প্রথমে ২১ দিনের জন্য দেশজুড়ে লকডাউন জারি করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পরে সেই লকডাউনের মেয়াদ আরও বাড়ে। দ্বিতীয় দফার লকডাউন শেষ হবে ৪ এপ্রিল।  তারপর? শোনা যাচ্ছে, যেসব এলাকায় নতুন করে কেউ করোনায় আক্রান্ত হননি, সেইসব এলাকায় বিধিনিষেধ শিথিল করা হতে পারে। তবে এখনই লকডাউন প্রত্যাহার বা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।