'কিষাণজি জিন্দাবাদ,'দালাল হাটাও দেশ বাঁচাও।' পুরসভা নির্বাচনের আগে ফের মাও আতঙ্ক ফিরল জঙ্গলমহলে। এবার পোস্টার পড়ল পুরুলিয়ার ঝালদায়। ঝাড়খণ্ড সীমানা লাগোয়া এলাকা থেকে পোস্টারগুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

পুরুলিয়া ঝালদার মসিনা গ্রাম। ঝাড়খণ্ড সীমানা থেকে এলাকাটি খুব বেশি দূরে নয়। মঙ্গলবার সকালে গ্রামের জলের ট্যাঙ্কি লাগোয়া দেওয়ালে বেশ কয়েকটি পোস্টার দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। স্রেফ সাদা কাগজেই নয়, রুমালেও লাল কালি দিয়ে পোস্টারগুলি লেখা হয়েছিল বলে জানা গিয়েছে। কি লেখা ছিল পোস্টারে? গ্রামবাসীদের দাবি,পোস্টারগুলিতে পুলিশকে যেমন হুমকি দেওয়া হয়েছে, তেমনি দুর্নীতির অভিযোগ তোলা হয়েছে বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পেও। ঘটনাটি নজরে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর দেওয়া হয় এক সিভিক ভলান্টিয়ারকে। শেষপর্যন্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পোস্টারগুলি উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন: পোলবা পুলকারকাণ্ডে তিনপক্ষকে নিয়ে বৈঠক পুলিশের, পরিস্থিতি কি বদলাবে

আরও পড়ুন: শহিদদের নামে স্কুলে বৃক্ষরোপণ, ভাষাদিবসে অভিনব উদযাপন বাগনানে

কিন্তু সত্যিই মাওবাদীরাই এই পোস্টারগুলি লাগিয়েছে? গ্রামবাসীদের অভিযোগকে খারিজ করে দিয়েছে পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, গ্রামের কেউ নেহাতই মজা করার জন্য় এমন কাণ্ড ঘটিয়েছে। তবে সে যাই হোক না কেন, পুরভোটের আগে এমন পোস্টার আতঙ্ক ছড়িয়েছে পুরুলিয়ার ঝালদার মসিনা গ্রামে। এমনকী, পোস্টারে যে অভিযোগ করা হয়েছে, তা যে মিথ্যা নয়, সেকথাও স্বীকার করে নিচ্ছেন কেউ কেউ। এর আগে  মাওবাদীদের  নামে হুমকি পোস্টারে আতঙ্ক ছড়িয়েছিল বাঁকুড়ার সারেঙ্গায়। সেবার পোস্টারে বলা হয়েছিল, দুর্নীতিগ্রস্থ পুলিশ আধিকারিকদের বিচার হবে জনগণের আদালতে। শাস্তি পাবেন দুর্নীতিগ্রস্ত তৃণমূল নেতারাও। এবার একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটল পুরুলিয়া। তাহলে কি রাজ্যে ফের মাথাচাড়া দিচ্ছে মাওবাদীরা? খতিয়ে দেখছে পুলিশ।