ভাঙড়ের ঘটকপুকুরে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড। কেরোসিনের দোকানে আগুন লেগে পাশের রেস্তোঁরায় ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মৃত্যু হল তিন জনের। মৃতদের মধ্যে দুই জন শিশু শ্রমিকও রয়েছে। আগুনের তীব্রতা এতটাই বেশি ছিল যে, আশেপাশের দোকানগুলিতে ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে পৌঁছান পুর ও নগরোন্নয়মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। মৃতদের পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দেন তিনি।

আরও পড়ুন-'নন্দীগ্রামে আবার ভোটে দাঁড়াবেন, নির্বাচনে আমরাও বুঝিয়ে দেব', শুভেন্দুকে হুঁশিয়ারি কল্যাণের

জানাগেছে, শনিবার সকালে ঘটকপুকুর এলাকায় একটি কেরোসিনের দোকান থেকে আগুনের ধোঁয়া বেরোতে দেখেন স্থানীয়রা। দোকানের ভিতর দাহ্য পদার্থ থাকায় মুহূর্তের মধ্যে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। আগুন ছড়িয়ে পড়ে পাশের রেস্তোঁরা ও মোবাইলের দোকানে। সেই সময় রেস্তোঁরার ভিতর ঘুমিয়ে ছিলেন মালিক সহ দোকানের দুই শিশু শ্রমিক। আগুনের তীব্রতার জেরে দোকানের ভিতর আটকে পড়েন তাঁরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ভাঙড় থানার পুলিশ ও স্থানীয়রা দোকানের দেওয়াল ভেঙে তাঁদের উদ্ধার করে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু সেখানে তাঁদের মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন-'দিদি ভাবছেন ভাইপো মুখ্যমন্ত্রী হবেন, বাংলায় এবার বিজেপির সরকার', মেদিনীপুরে তোপ অমিত শাহের

অগ্নিকাণ্ড খবর পেয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান তিনি। ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের পরিবার পিছু ৩ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের নির্দেশে তিনি সেকানে গিয়েছিলেন বলে জানান ফিরহাদ।