প্রবল ঘূর্ণীঝড় বুলবুলের মাঝেই খড়গপুরে বাসিন্দা, ভূগোলের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী শিপ্রা দলুই সন্তান প্রসব করেন। আর ঘূর্ণীঝড় বুলবুল-এর নামেই তার সন্তানের নাম রাখা হয় বুলবুল। 

আরও পড়ুন, নিঃসঙ্গ মায়ের জন্য জীবনসঙ্গী চাই, ফেসবুকে ভাইরাল ছেলের পোস্ট

শনিবার সন্ধ্য়ে ৫:২০ এর দিকে শিপ্রা দলুই-র প্রসব যন্ত্রনা ওঠে । এদিকে বাইরে তখনও ঝড়ের তান্ডব চলছে।   তার স্বামী অশোক দলুই জানান যে, গাইকোলজিস্টের পরামর্শে তারা আর দেরি করেননি। যদিও হাইওয়ের রাস্তা দিয়ে হাসপাতাল অবধি পৌছানোই ছিল যথেষ্ট কষ্টকর। কিন্তু অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে  ঝড়ের মধ্য়েই শিপ্রা দলুইকে মেদনীপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করানো হয়। পৌছতে পৌছতেই বেজে যায় রাত ৮:২০। তড়িঘড়ি করে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় অপারেশন থিয়াটারে। তারপর রাত ৮:৫০ নাগাত, আসে সেই সুসংবাদ। শিপ্রা দেবী পুত্র সন্তানের জন্ম দেন।  শিপ্রা দলুই জানান যে, হাসপাতালে ভর্তি হতে আসার সময়,তাদের নতুন অতিথির নাম ঠিক করা হয়ে যায়। তার বাবা ও  স্বামী  মিলেই সন্তানের নাম ঠিক করেন। ঝড়ের নামেই আগামীর নাম রাখা হয় বুলবুল।  

আরও পড়ুন, বুলবুল বিধ্বস্ত কাকদ্বীপ- নামখানায় মমতা, ক্ষয়ক্ষতি সামলাতে দিলেন নির্দেশ

৩ কেজি ১৯ গ্রামের ছোট্ট বুলবুল এখন এসএনসিইউ অর্থাৎ সিক নিউ বর্ণ কেয়ার ইউনিট-এর বিশেষ তত্ত্বাবোধনে রয়েছে। গাইকোলজিস্ট সব্য়সাচী রায় জানান যে,অন্তঃসত্ত্বা শিপ্রা দলুই-এর অবস্থা মোটেই ভাল ছিলনা। তাই আর দেরী না করেই তারা অপারেশন করেন। তিনি আরও জানান, বাচ্চাটি এখন তাদের দায়িত্বেই রয়েছে, খুব শীঘ্রই সে সম্পূর্ণ সুস্থ ও স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।