আশিষ মণ্ডল, বীরভূম: ঔরাঙ্গাবাদে রেল দুর্ঘটনার জের। জাতীয় সড়কে পরিযায়ী শ্রমিকদের পথ আটকাল পুলিশ। তাঁদের রাখা হয়েছে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে। ঘটনাটি ঘটেছে বীরভূমের মল্লারপুরে। 

আরও পড়ুন: সংক্রমণ ছড়াচ্ছে্ উত্তর দিনাজপুরে, এবার করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলল ইটাহারে

পেটের দায়ে ভিন রাজ্যে কাজ করতে যেতে হয় তাঁদের। লকডাউনে জেরে সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা। কাজকর্ম বন্ধ, রোজগার নেই। কেউ রেললাইন ধরে, তো কেউ আবার জাতীয় সড়ক দিয়ে, ভিনরাজ্য থেকে হেঁটেই শ্রমিকরা বাড়ি ফিরছেন। আর তাতে বিপদ আরও বাড়ছে।  দিন কয়েক আগে মহারাষ্ট্রের ঔরাঙ্গাবাদে ভয়াবহ দুর্ঘটনার কবলে পড়েন পরিযায়ী শ্রমিকরা। রাতে রেললাইন বিশ্রাম নিচ্ছিলেন তাঁরা। ঘুমন্ত অবস্থায় ট্রেনের ধাক্কায় মারা যান কমপক্ষে ১৬ জন। এই ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়েছে প্রশাসন। পরিযায়ী শ্রমিকদের হাঁটতে দেখলেই এখন আটক করছে পুলিশ। 

আরও পড়ুন: ঔরঙ্গবাদের পুনরাবৃত্তি বীরভূমে, বরাতজোরে রক্ষা পেলেন পরিযায়ী শ্রমিকরা

আরও পড়ুন: রাস্তায় তালাবিহীন সাইকেল, করোনা আতঙ্কে ছুঁয়ে দেখছে না চোরেরাও

জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমানের মেমারি থেকে ৬০ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে ঝাড়খণ্ডের দিকে যাচ্ছিলেন ২৮ জন শ্রমিক। মঙ্গল রাতে বীরভূমের মল্লারপুরে তাঁদের আটকান কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিকরা। মল্লারপুর থানার ওসি বৃকোদর সান্যাল বলেন, 'ওদের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে। মহকুমা শাসকের কাছে তালিকা জমা দেওয়া হয়েছে। তিনি যেভাবে নির্দেশ দেবেন সেভাবে তাদের বাড়ি পাঠানো হবে।'