বেশি রাতের লোোকাল ট্রেনের কামরার মধ্যেই শ্লীলতাহানির অভিযোগ তুললেন মহলা যাত্রী। আর যার বিরুদ্ধে অভিযোগ, সে নিজেই রেল পুলিশের একজন কনস্টেবল। মহিলা যাত্রীদের নিরাপত্তা দেওয়াই যাঁর দায়িত্ব। রাতেই অভিযুক্তের বিরুদ্ধে সোনারপুর জিআরপি থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন নিগৃহীতা। 
অভিযোগকারিণীর দাবি, বৃহস্পতিবার রাতে ব্যক্তিগত কাজে কাজে নামখানা গিয়েছিলেন তিনি। রাত ৮.৪৬ মিনিটের শেষ নামখানা শিয়ালদহ লোকাল ধরে সোনারপুরে ফিরছিলেন ওই মহিলা। তিনি একজন উঠতি অভিনেত্রী বলেও জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুন- শিক্ষকের হাতেই হেনস্থা, কোচের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ জাতীয় সাঁতারুর

অভিযোগ, ওই পুলিশকর্মীই তাঁকে সাধারণ কামরা ছেড়ে নিরাপত্তার কারণে মহিলা কামরায় যেতে বলেন। তিনি মহিলা কামরায় গেলে অভিযুক্ত আরপিএফ কর্মী তাঁর পিছু নেন বলে অভিযোগ। মহিলা কামড়ায়র কোন যাত্রী না থাকার সুযোগ নিয়ে ওই মহিলাকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করতে থাকে সে। এমনকী, তাঁকে জড়িয়েও ধরে ওই পুলিশকর্মী। পাশাপাশি তাকে ট্রেনের মধ্যেই মদ ও সিগারেট খাওয়ার জন্য জোর করতে থাকে সে। বিভিন্ন ধরনের কুপ্রস্তাব ও দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। ওই পুলিশকর্মী নিজেই মদ্যপ অবস্থায় ছিল বলে দাবি করেছেন নির্যাতিতা যাত্রী। 

টানা বারুইপুর পর্যন্ত এইভাবে চলতে থাকে নির্যাতন। রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ সোনারপুর স্টেশনে নেমে অবশেষে জিআরপি থানায়  সমরেশ মণ্ডল নামে ওই পুলিশকর্মীর নামে অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করে পুলিশ। অভিযোগ পাওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই ওই পুলিশকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।