কলকাতার গার্ডেনরিচের পর এবার উত্তর চব্বিশ পরগণার ঠাকুরনগর। আবারও স্কুলের পঠনপাঠন লাটে তুলে বিয়ে বাড়ির আয়োজন করার অভিযোগ। যদিও স্কুলের শিক্ষিকা এবং বিয়ে বাড়ির আয়োজকদের দাবি, বিয়ের অনুষ্ঠানের জন্য পঠনপাঠনে কোনও অসুবিধাই হয়নি। 

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর চব্বিশ পরগণার ঠাকুরনগরে। অভিযোগ, স্থানীয় বড়া কৃষ্ণনগর সহদেব শিশুশিক্ষা নিকেতন স্কুল চত্বরে গত তিন দিন ধরে বিয়ের জন্য প্যান্ডেল তৈরি করা হয়েছে। এ দিনও বেলা বারোটা বাজতে না বাজতেই স্কুল ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়। যদিও স্কুল হওয়ার কথা বিকেল তিনটে পর্যন্ত। এমন কী স্কুল বন্ধের তাড়ায় পড়ুয়াদের ঠিকমতো মিড ডে মিল দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ।

আরও পড়ুন- তৃণমূল কাউন্সিলরের মদতে স্কুলবাড়িতে বিয়ের আসর, বিপাকে শিক্ষক ও পড়ুয়ারা

স্কুলের শিক্ষিকাদের অবশ্য দাবি, বিয়ে বাড়ির জন্য স্কুলের কোনও অসুবিধা হয়নি। বরং চারজন শিক্ষিকা বিডিও অফিসে ফর্ম ভরার জন্য যাবেন বলেই আগেভাগে স্কুল ছুটি দেওয়া হয়েছে। যদিও স্কুলে বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজনের জন্য কে অনুমতি দিয়েছেন, তার সদুত্তর দিতে পারেননি স্কুলের শিক্ষিকারা। 

স্থানীয় ব্যবসায়ী পীযূষকান্তি মণ্ডলের মেয়ের বিয়ে উপলক্ষে স্কুল চত্বরে প্যান্ডেল করা হয়েছে। পীযূষবাবুও দাবি করেছেন, প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে কেউ তাঁর নামে মিথ্যে অভিযোগ করেছেন। তাঁর দাবি পঞ্চায়েতের পাশাপাশি স্কুল কর্তৃপক্ষের থেকেও তিনি মৌখিক অনুমতি নিয়েছেন। আবার স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যের দাবি, স্কুল অনুমতি দিয়েছে বলেই তিনি সেখানে বিয়ের প্যান্ডেল করার অনুমতি দিয়েছেন।