শিক্ষকদের হাত ধরে সিএএ বিরোধিতায় নামল স্কুল ছাত্ররা। বুকে প্ল্য়াকার্ড ঝুলিয়ে মানব বন্ধন গড়ে তুলল তারা।  উত্তরদিনাজপুরে স্কুল ছাত্রদের এই মানব বন্ধন নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক। নাবালকদের সিএএ বিরোধিতার পিছনে তৃণমূলের নোংরা রাজনীতি দেখছে বিজেপি। 

মুখ্যমন্ত্রীর বিধানসভায় নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে মদন, রাজ্য জুড়ে মানব বন্ধন তৃণমূলের

বুধবার ঘোষিত কর্মসূচি মেনে সারা রাজ্য়ে সিএএ বিরোধিতায় নেমেছে তৃণমূল।  তবে দলীয় কর্মসূচি হলেও বেশিরভাগ জায়গায় দলের পতাকা ব্য়বহার করেনি শাসক দল। মূলত, দলের প্রতিবাদকে সাধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত প্রতিবাদ বলেই দেখাতে চেয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। কিন্তু উত্তরদিনাজপুরে এসে ছন্দপতন ঘটেছে প্রতিবাদের। শিক্ষকদের সঙ্গে যেখানে মানবশৃঙ্খলে দেখা গিয়েছে স্কুলের ছাত্রদের। যার তীব্র  প্রতিবাদ করেছে বিজেপি।

রাষ্ট্রপতি কি প্রতিদিন কথা বলেন, রাজ্য়পালকে মনে করালেন পার্থ 

বিজেপির জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি জানিয়েছেন, সিএএ-র বিরোধিতা করে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে একের পর এক কর্মসূচি করলেও তারা জেলায় জনসমর্থন   পাচ্ছে না।বাধ্য হয়েই স্কুলের বাচ্চাদের তারা এই নোংরা রাজনিতিতে সামিল করেছে। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করার পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের কাছে এর তদন্তের দাবি করছি।" 

পুরভোটের নির্ঘণ্ট ঘোষণার আগেই প্রচার, দেওয়াল লিখলেন তৃণমূল কাউন্সিলর

এদিন দুপুরে উত্তর দিনাজপুর জেলার পাঞ্জিপাড়া এলাকার কয়েকটি বেসরকারি স্কুলের ছাত্রছাত্রীরা সিএএ-র বিরোধিতা করে মানব বন্ধন নামে। সবথেকে অবাক করার বিষয়ে  ছাত্রদের পিছনে দাঁড়িয়ে এই কাজকে সমর্থন করেন শিক্ষকরা। পরে ছাত্রছাত্রীরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে এই কর্মসূচি করেছে বলে স্কুলের তরফে দাবি করা হয়। যদিও বিজেপির দাবি, পথে না  নামলে স্কুলের  রেজিস্ট্রেশন বাতিল হওয়ার ভয় রয়েছে। তাই শাসক দলের ভয়ে বাধ্য় হয়েই এই কাজে নামতে হয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষকে।