পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সম্পর্কে ফের বোমা ফাটাল বিজেপি। তিনি নাকি খুব শীঘ্রই তৃণমূল দল ছাড়ছেন। তার জন্য শুধু সময়ের অপেক্ষা। এমনটাই দাবি করলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। যদিও, রামনগরের সভায় নিজের অবস্থান সম্পর্কে আগেই স্পষ্ট করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি যে তৃণমূলেই আছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের মন্ত্রিসভায় আছেন। তা নিজেই প্রকাশ্য জনসভায় বলেছিলেন। তারপরেও, শুভেন্দুকে নিয়ে এই ধরনের দাবি কেন করছেন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব? রাজ্য রাজনীতিতে তাঁকে ঘিরে জোর জল্পনা।

আরও পড়ুন-'দিলীপ ঘোষ একটা ভাইরাস', তাঁকে তৃণমূলের বুথ কমিটিতে যোগদানের আহ্বান অনুব্রতর

বিধানসভা ভোট যতই এগিয়ে আসছে শুভেন্দুকে নিয়ে কৌতূহল বাড়ছে রাজ্য রাজনীতিতে। নন্দীগ্রামের সভা থেকে ময়দানে দেখে নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। এরপর, রামনগরের সভায় দাঁড়িয়ে বলেছিলেন, আমি এখনও একটি দলের প্রাথমিক সদস্য। আমি মন্ত্রিসভার সদস্য। মুখ্যমন্ত্রী আমাকে তাড়াননি, আমিও ছাড়িনি। শুভেন্দুর এই মন্তব্যের পরই তিনিই যে তৃণমূলেই আছেন এবং থাকছেন তা তিনি নিজেই স্পষ্ট করে দিয়েছেন। কিন্তু, তারপরেও বিজেপি শিবির থেকে একের পর এক বোমা ছুটে আসছে শুভেন্দুকে নিয়ে।

আরও পড়ুন-বৈশাখী-তে উদাস বিজেপি, শোভন কর্মসূচি শুরু হওয়ার আগেই ফের ধোঁয়াশা

শুভেন্দুর মন্তব্যের পর সেই রামনগরে দাঁড়িয়ে তাঁর দলত্যাগের কথা বললেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়। রামনগর স্টেশন সংলগ্ন মাঠে দলীয় সভায় রাজ্য বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত পর্যবেক্ষক বলেন, দিতদি এখন নিজের আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছেন। দল পরিচালনার দায়িত্ব দিয়েছেন ভুয়ো সংস্থাকে। তৃণমূল এখন দিদির পার্টি নয়। তৃণমূল এখন মুকুল পার্টি নয়। তৃণমূল শুভেন্দু অধিকারীর নয়। শুভেন্দু এখন দলকে বিদায় জানাতে প্রস্তুত।

আরও পড়ুন-পরিবারের অজান্তেই রোগীকে 'পুড়িয়ে দিল' হাসপাতাল, খড়দহ হাসপাতালে নজিরবিহীন কাণ্ড

দল থেকে দূরত্ব বজায় রাখার পর থেকে বিজেপিতে গুরুত্ব বাড়ছে শুভেন্দুর। তাঁকে বিজেপি আহ্বান জানিয়েছিলেন অর্জুন সিং থেকে লকেট চট্টোপাধ্য়ায়। শুধু তাই নয়, তৃণমূলের পাঁচ মন্ত্রী বিজেপিতে যোগদান করছেন বলে দাবি করেছিলেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। এবার শুভেন্দু গড়ে দাঁড়িয়েই তিনি দলত্যাগ করছেন বলে দাবি করলেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়।