বড় সাফল্য মেডিকার, ডাক্তারদের তৎপরতায় হাত ফিরে পেল হাসনাবাদের সুজয়

| Sep 28 2022, 08:20 PM IST

বড় সাফল্য মেডিকার,  ডাক্তারদের তৎপরতায় হাত ফিরে পেল হাসনাবাদের সুজয়

সংক্ষিপ্ত

হাসনাবাদের নন্দনপুরের বাসিন্দা সুজয়, ট্রাকে মাল তোলার কাজ করে কোনও মতে সংসার চলে তার। এই অবস্থায় হাত কাটা গেলে জুটবে না দিন মজুরের কাজও। কী ভাবে টাকা আসবে? কী খাবে? চিকিৎসাই বা হবে কীভাবে এমন নানা প্রশ্ন ভাবাচ্ছিল সুজয়বাবুকে।
 

হাতে ঢুকেছিল আস্ত একটা লোহার রড। রক্তাক্ত অবস্থায় মেডিকার সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে  নিয়ে আসা হলে জানা যায় হাতের হাড় সমেত ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বেশ খানিকটা অংশ। শরীরের মধ্যে লোহার রড ঢুকে যাওয়ায় প্রাথমিকভাবে হাত কেটে বাদ দেওয়াই একমাত্র উপায় বলে মনে হয়েছিল। কিন্তু ডান হাত বাদ গেলে খাবে কী? যন্ত্রণায় ছটফট করতে করতেও চিন্তার ভাঁজ পড়ে ৩০ বছর বয়সী সুজয় চক্রবর্তীর কপালে।
 
হাসনাবাদের নন্দনপুরের বাসিন্দা সুজয়, ট্রাকে মাল তোলার কাজ করে কোনও মতে সংসার চলে তার। এই অবস্থায় হাত কাটা গেলে জুটবে না দিন মজুরের কাজও। কী ভাবে টাকা আসবে? কী খাবে? চিকিৎসাই বা হবে কীভাবে এমন নানা প্রশ্ন ভাবাচ্ছিল সুজয়বাবুকে। হাত ফিরে পাওয়ার আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু হাল ছাড়েননি মেডিকা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ডাক্তাররা। চিকিৎসকদের অক্লান্ত পরিশ্রম আর অভিজ্ঞতার জোরেই হাত ফিরে পেল হাসনাবাদের নন্দনপুরের বাসিন্দা সুজয়। 

গত ১৩ সেপ্টেম্বর রোজকার মতো টেম্পোতে মাল তুলে বাড়ি ফিরছিলেন সুজয়। আচমকাই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের মেট্রো লাইন তৈরির কাজের জন্য রাখা কিছু লোহার উপর ধাক্কা মারে টেম্পোটি। ঘটনায় গুরুতরভাবে আহত হন সুজয়। তাঁর হাতের উপরের অংশে ঢুকে যায় একটি লোহার রড। তড়িঘড়ি তাঁকে নিকটবর্তী মেডিকা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে নিয়ে গেলে ইমারজেন্সিতে ভর্তি করে নেওয়া হয় সুজয়কে। হাসপাতাল সূত্রে খবর স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকায় কোনও অপেক্ষা না করে ভর্তি করে নেওয়া গিয়েছিল সুজয়কে। 

Subscribe to get breaking news alerts

আরও পড়ুনচুল অতিরিক্ত পাতলা, এভাবে যত্ন নিন নাহলে টাক হতে বেশি সময় লাগবে না

ডঃ উদীপ্ত রায় জানিয়েছেন বহুদিন পর এত কঠিন কেস এসেছে হাসপাতালে। রডটি বের করতে একটি মেটাল কাটারের সাহায্য নিতে হয়েছিল তাঁদের যার ফলে বেশ কিছু টিস্যু পুড়ে গিয়েছিল। রড ঢোকার কারণে আগে থেকে গুরুতরভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল চামড়া ও ক্ষতস্থানের আশেপাশের বেশ খানিকটা অংশের টিস্যু। তবে জিআই অস্ত্রোপচার বিভাগের অভিজ্ঞ ডাক্তাররা এবং মেডিকার কেয়ার টিমের সকলের একযোগে প্রচেষ্টাই এই অসম্ভবকে সম্ভব করে তুলেছে। 

আরও পড়ুন উৎসবের মরশুমে নিজেকে সুন্দর ও স্টাইলিশ দেখাতে অবশ্যই এই মেকআপ টিপসগুলি