অসুস্থতার নাম করে ডেকে নিয়ে গিয়ে ধারালো অস্ত্রের কোপ! দিনেদুপুরে আক্রান্ত হলেন এক তৃণমূল কাউন্সিলর। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বজবজের পূজালিতে। আক্রান্ত কাউন্সিলরকে ভর্তি বেসরকারি হাসপাতালে। দু'জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: খোদ তৃণমূল বিধায়কের বাড়িতে দুঃসাহসিক চুরি, প্রশ্নের মুখে এলাকার নিরাপত্তা

বজবজের পুজালি পুরসভার তিন নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর চিন্ময় বারুই। শনিবার সকালে পাড়ার চায়ের দোকানে অংশুমান দাস নামে এলাকার এক বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলছিলেন তিনি। স্থানীয় সূত্রে খবর, অংশুমানবাবু কাউন্সিলরকে বলেন, তাঁর ভাই অনিন্দ্য দাস অসুস্থ। বাড়িতে গিয়ে ভাইকে দেখে, প্রয়োজন পড়লে হাসপাতালে ভর্তি করার অনুরোধ জানান। এরপর ওই ব্যক্তির বাড়িতে যান কাউন্সিলর। অনিন্দ্যকে দেখে যখন বাড়ির বাইরে আসছিলেন, তখন ওই যুবকই পিছন থেকে কাউন্সিলর চিন্ময় বারুইকে ধারালো অস্ত্রের কোপ মারেন বলে অভিযোগ। চিৎকার শুনে ছুটে আসেন আশেপাশের লোকজন। রক্তাক্ত অবস্থায় কাউন্সিলরকে ভর্তি করা হয় বজবজের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। তাঁর শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

আরও পড়ুন: আমফান ত্রাণে 'দুর্নীতি', বিডিও-র অফিসে 'হামলা'র মুখে পড়লেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা

এদিকে ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। কিন্তু কাউন্সিলরের উপর কেন হামলা হল? পুজালি পুরসভার চেয়ারম্যান তাপস বিশ্বাস বলেন, এই হামলার ঘটনা কেন ঘটল, তা এখনও অজানা। স্থানীয় বাসিন্দাদের কেউ কেউ অবশ্য রাজনীতির গন্ধ পাচ্ছেন। তদন্তে নেমেছে বজবজ থানার পুলিশ। মূল অভিযুক্ত অনিন্দ্য-সহ দু'জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।