ইতিমধ্যে বর্ষা চলে এসেছে দক্ষিণবঙ্গে। তার জেরে নিয়মিতই প্রায় বৃষ্টি চলছে বাংলায়। মঙ্গলবার কলকাতার দিন শুরু হয়েছে বৃষ্টি দিয়েই। এদিনও শহরে বজ্রবিদ্যুৎ সহ ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। রাতের দিকেও হতে পারে ঝড়-বৃষ্টি। মঙ্গলবার কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে বাতাসে জলীয় বাষ্প বেশি থাকার জন্য আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তিও বিরাজ করছে।

মৌসম ভবন জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশ ও মধ্যপ্রদেশের উপর একটি ঘূর্মাবর্ত রয়েছে। এছাড়া রাজস্থান থেকে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে নিম্নচাপ অক্ষরেখা। এই জোড়া প্রভাবে জলীয় বাষ্পের একটানা জোগান রয়েছে। তাই এই রাজ্যে এতটা সক্রিয় মৌসুমী বাতাস। নিম্নচাপ অক্ষরেখার প্রভাবে রোজই বৃষ্টি হচ্ছে বাংলায়। এই মধ্যে আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, শুক্রবার নাগাদ আরও একটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। সেই নিম্নচাপ একেবারে বাংলার উপকূলে হাজির হতে পারে। যার ফলে আগামী শুক্রবার থেকে রাজ্য জুড়ে বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে। কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টি হতে পারে। এমন চলতে থাকলে রবিবার পর্যন্ত বৃষ্টির হাত থেকে রেহাই মেলার সম্ভাবনা কম।

আরও পড়ুুন: করোনা ফিরিয়ে নিয়ে এল প্রাচীন প্রথা, পুরীর রথ এবার টানতে চলেছে গজরাজ

উত্তর বঙ্গোপসাগরে নতুন সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপের ফলে উত্তর ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা ও পূর্ব মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। এছাড়াও আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, সপ্তাহজুড়ে কলকাতা, পশ্চিম মেদিনীপুর, হাওড়া, হুগলি, দুই বর্ধমান, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, নদিয়াতেও বৃষ্টি চলবে।

আরও পড়ুন: নতুন করে কোনও লকডাউন হচ্ছে না দিল্লিতে, শাহের সবর্দল বৈঠকের পর জল্পনা উড়িয়ে ট্যুইট কেজরির

দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলিও বাদ যাবে না বৃষ্টির কৃপা থেকে। দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, মালদা, দুই দিনাজপুরে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি করা হয়েছে।