পাওনা টাকা না দিতে পারায় দেওর ও ভাসুর এর হাতে আক্রান্ত হলেন বৌদি। ঘটনাটি ঘটেছে, বসিরহাট মহাকুমার হাসনাবাদ থানার পূর্ব ঘুনি গ্রামে। পাওনা ৫০০ টাকা  না পেয়ে  আস্ত ইট নিয়ে বৌদির ওপর চড়াও হয় ওর ও ভাসুর।

আরও পড়ুন, পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা যাওয়া যাবে না শৌচাগারে, নয়া বিধি উচ্চমাধ্যমিকে


সূত্রের খবর,  বছর পঁয়ত্রিশের সম্পর্কে বৌদি শাহানারা বিবি কাছে ৫০০ টাকা পেত দেওর। মুস্তাফির খানা, গত মঙ্গলবার রাত্রিবেলা বৌদি শাহানারা ঘরের মধ্যে বিড়ি বাধছিল। হঠাৎই পাওনা টাকা চাইতে যায় দেওর মুসাফির সঙ্গে  ভাসুর সিরাজুল। সেই টাকা না দিতে পারায় আস্ত ইট নিয়ে বৌদির ওপর চড়াও হয়। প্রথমে তার মাথা ফাটিয়ে দেয়। তারপর তাঁর মুখেও সজোরে আঘাত করায় দাঁতের উপর গিয়ে লাগে। এরপরই রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকেন ওই মহিলা। যখন স্বামী রেজাউল ইসলাম খান সেই সময় বাড়িতে ছিলেন না। গভীর রাত্রে বাড়িতে এসে দেখে অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছে মেঝের ওপর। এরপর তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে টাকি গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, দোলের পরেই সুখবর, একলাফে দাম কমল পেট্রোল-ডিজেলের

 স্বামী রেজাউল বলেন আমার অনুপস্থিতিতে সামান্য ৫০০ টাকার জন্য আমার স্ত্রীকে খুনের চেষ্টা করেছে ওরা। এর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। এমনকি শ্লীলতাহানির অভিযোগে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। শাহানারা বিবি বলেন, আমার ভাসুর সিরাজুল খান নারী পাচারের সঙ্গে যুক্ত ।এর আগে কয়েকবার জেল খেটেছে। পরিকল্পনা করে আমার উপর হামলা করেছে এর দৃষ্টান্তমূলক আইনি ব্যবস্থা নেয়া হোক। দেওর মুসাফির খান ও ভাসুর সিরাজুল খানের বিরুদ্ধে হাসনাবাদ থানায় অভিযোগ করা হয়েছে। শুধু মাত্র ৫০০ টাকার জন্য কি এইভাবে হামলা নাকি পারিবারিক গণ্ডগোলের জের জমি সংক্রান্ত বিবাদ, না পুরনো শত্রুতার জের, পুরোটাই তদন্ত শুরু করেছে হাসনাবাদ থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন, ২০০টির কাছাকাছি শূন্য় পদ, পুরভোটের আগে ফের শিক্ষক নিয়োগ রাজ্যে