অর্ধনগ্ন অবস্থায় এক মহিলার দেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল এলাকায়। মৃত মহিলার দেহ উদ্ধারের সময় তাঁর গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ছিল। ঘটনাটি ঘটেছে বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া এলাকায়। মহিলাকে খুনের প্রতিবাদে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন-'পরীক্ষার আগেই মোবাইলে ঘুরছে টেটের প্রশ্নপত্র', বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন শুভেন্দু

মুর্শিদাবাদের লালবাগে গোলালগর এলাকায় মহিলার দেহ উদ্ধার। সোমবার সকালে এলাকার একটি জমিতে ওই মহিলার দেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা। মৃত ওই মহিলা বছর বত্রিশের নাজিমা খাতুন। ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে স্থানীয় বাসিন্দারা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। ঘটনাস্থলে লালবাগ থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী পৌঁছে পরিস্থিতির সামাল দেয়। খুনের ঘটনায় জড়িত থাকাদের গ্রেফতারের দাবিতে সরব হন স্থানীয় বাসিন্দারা। 

আরও পড়ুন-'লাগবে না রাস্তা-ওই টাকা কৃষকদের দিক', 'আমি সব বানিয়ে দেব'- বাজেট শুনেই প্রতিশ্রুতি মমতার

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, দরিদ্র পরিবারের মেয়ে অবিবাহিত নাজিমা আদতে খুবই শান্ত ও সহজ সরল স্বভাবের মেয়ে। গ্রামের সকলের সঙ্গেই তাঁর ভাল সম্পর্ক। প্রতিদিন নিয়ম করে দুপুরে জমিতে শুকনো গাছের ডালপালা জ্বালানির জন্য কেটে আনতে যায় সে। এদিনও জমি থেকে ডালপালা কেটে নিয়ে আনার জন্য গিয়েছিল। দীর্ঘ সময় কেটে গেলেও বিকেলে বাড়ি ফিরে না আসায় সকলে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। তারপরেই সর্ষের জমির ভিতর থেকে তার মর্মান্তিক ভাবে গলায় ফাঁস লাগানো দেহ উদ্ধার হয়।