জ্বর ও সর্দি-কাশিতে ভুগছেন মা। মেয়েরও শরীরটা ভালো যাচ্ছে না। করোনায় আক্রান্ত নন তো? গুজব ছড়াল নদিয়ার নবদ্বীপে। ঘটনায় অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

আরও পড়ুুন: টিকিয়াপাড়ার এবার সিউড়ি, ভিড় সরাতে গিয়ে ফের আক্রান্ত পুলিশ

নবদ্বীপ শহরের সর্দার পাড়া এলাকায় থাকেন সন্ধ্যা বিশ্বাস। তাঁর একমাত্র মেয়ে প্রিয়াঙ্কা বিবাহিত। ওই তরুণীর শ্বশুরবাড়ি নবদ্বীপের কাছেই, ভালুকা এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, দিন পনেরো আগে যখন মা-এর কাছে আসেন, তখন অসুস্থ ছিলেন প্রিয়াঙ্কা। কয়েকদিন পর আবার জ্বরে পড়েন সন্ধ্যাও। সঙ্গে সর্দি-কাশি-র উপসর্গও ছিল। ঘটনাটি জানাজানি হতেই এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শেষপর্যন্ত পুলিশের সাহায্যে পুরসভার অ্যাম্বুল্যান্সে চাপিয়ে মা ও মেয়েকে নিয়ে যাওয়া হয় নবদ্বীপ স্টেট জেনারেল হাসপাতালে। তবে শারীরিক পরীক্ষায় সন্দেহজনক উপসর্গ পাওয়া যায়নি এবং তাঁদের হাসপাতালে ছেড়ে দেওয়া হয় বলেও জানা গিয়েছে। 

 

আরও পড়ুন: লকডাউনে মদ কিনতে হাজির হাজারখানেক মানুষ, মুখ্যমন্ত্রীর পাড়ায় ১৪৪ ধারা ভাঙতেই পুলিশের লাঠিচার্জ

আরও পড়ুন: মদ বিক্রি থেকে গাড়ি চলাচল, একাধিক বিষয়ে ছাড় লকডাউন ৩-এ, একনজরে দেখে নিন

এদিকে ততদিনে সন্ধ্যা ও  প্রিয়াঙ্কার করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়েছে। সন্দেহের চোখে দেখাই শুধু নয়, তাঁরা জনমজুরির কাজও পাচ্ছিলেন না বলে অভিযোগ। ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে অক্ষয় বিশ্বাস নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে এফআইআর করেন সন্ধ্যা সর্দার। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। দোষীদের কঠোর শান্তির দাবি করেছেন কাউন্সিলর।