Asianet News BanglaAsianet News Bangla

ভারতের সেরামের করোনা প্রতিষেধকের দিকে তাকিয়ে প্রতিবেশী, জানিয়েছে বাংলাদেশের বেক্সিমকো

  • সেরামের করোনা প্রতিষেধক যাবে বাংলাদেশে
  • প্রথম তালিকাভুক্ত দেশ হিসেবেই প্রতিশেধক পাবে 
  • দুই দেশের সম্পর্ক আরও শক্ত হবে 
  • দাম আর সময়ের কথা বিবেচনা করেই চুক্তি 
     
coronavirus vaccine deal india and bangladesh step forward bsm
Author
Kolkata, First Published Aug 30, 2020, 5:14 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

ব্রিটেনের অক্সোফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় আর অ্যাস্ট্রাজেনেকা কোম্পানির যৌথ উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক। আর এই প্রতিষেধক বাজারজাত করার জন্য ইতিমধ্য়েই চুক্তি বদ্ধ হয়েছে ভারতের সংস্থা সেরাম ইনন্টিটিউট। সংস্থার হাতেই রয়েছে করোনা টিকা তৈরি পেটেন্ট। এবার সেরামের সঙ্গে চুক্তি করল বাংলাদেশের ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। 


বাংলাদেশের সংস্থাটির পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, সেরামের তৈরি প্রতিষেধক শুধুমাত্র বেক্সিমকোর মাধ্যমেই বাংলাদেশে সরবরাহ করা হবে। তবে কত টাকার চুক্তি হয়েছে তা এখনও জানান হয়নি। তবে সংস্থার পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে ভ্যাক্সিন নিয়ন্ত্রণ সংস্থার অনুমোদন পেলে প্রথম যে দেশগুলি সেরামের তৈরি টিকা পাবে সেই তালিকায় নাম রয়েছে বাংলাদেশের। 

টিকা প্রস্তুতকারক সংস্থা হিসেবে বিশ্বের প্রথম স্থানে রয়েছে সেরাম ইন্টিটিউটের নাম। বেক্সিমকোর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এই চুক্তি শুধু দুটি সংস্থার মধ্যেই সীমাবদ্ধ নেই। দুটি প্রতিবেশী দেশের সম্পর্কের দৃঢ় সম্পর্কও ফুটে উঠেছে। ভারতের বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রিংলার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার প্রায় ১০ পরই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। শ্রিংলা ভারত ছাড়ার আগেই এই বিষয়ে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, বিশ্বের ৬০ শতাংস প্রতিষেধক তৈরি করবে ভারত। আর সেই কারণেই নিকটতম প্রতিবেশী বন্ধুদেশগুলিকে প্রতিষধক দিয়ে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করা হবে। 

ভারতে কি আছড়ে পড়ল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় তরঙ্গ, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা ...

৪ ফুট লম্বা কোবরা বাসা বেঁধেছিল বেঁধেছিল মেট্রোতে, উদ্ধার করেন সংশ্লিষ্ট কর্মীরা ...

বাংলাদেশের সংস্থার পক্ষ থেকে জানান হয়েছে, দেশের মানুষের সুবিধের জন্য করোনাপ্রতিষেধক সুরক্ষিতভাবে সংরক্ষণ করা হবে। সংস্থার পক্ষ থেকে আরও জানান হয়েছে, প্রতিষেধকের খরচ আর কত দ্রুত তা হাতে পাওয়া যাবে-- সেই সবদিক ক্ষতিয়ে দেখেই ভারতের সেরাম ইন্সিটিটউটের সঙ্গে কথাবার্তা বলা  হয়েছে। বিশ্বের মোট সাতটি প্রতিষ্ঠান করোনা প্রতিষেধক তৈরির কাজ করছে। সেরামের প্রতিষেধক চলতি বছর শেষের দিকে, নাহলে আগামী বছরের গোড়ায় হাতে পাওয়া যাবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বেক্সিমকো সেরামের সঙ্গে প্রতিষেধক বিকাশে পার্টনার হিসেবে কাজ করবে বলেও জানান হয়েছে সংস্থার পক্ষ থেকে। 

খেলতে খেলতেই শিখতে হবে, একই সঙ্গে দেশীয় খেলনা হাবের কথা মন কি বাত অনুষ্ঠানে বললেন প্রধানমন্ত্রী ...

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios