ভারতে টিকটক ব্যান হওয়ার পর থেকে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন নুসরত জাহান। কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলে তিনি বক্তব্য রেখেছেন, একটি অ্যাপ ব্যান করে অনেকের রুজি রোজগার ছিনিয়ে নেওয়া হল। নানা বক্তব্যের পাশাপাশি তিনি এণন কিছু বলে বসেন যা রীতিমত ট্রোলারদের এক নয়া সুযোগ দিয়ে দিয়েছে মিম বানানোর। তিনি সংবাদমাধ্যমের সামনে বলে ফেলেন, "গুগল, নাসা থেকে টিকটকের বিক্লপ কোনও অ্যাপ বানানো হোক।" এরপরই নেটিজেনদের প্রশ্নের বানে বিদ্ধ হন নুসরত। কয়েকদিন কেটে যাওয়ার পরও ট্রোলিংয়ের রেশ এখনও কাটেনি।

আরও পড়ুনঃবিকিনিতে মৌনি, বহুদিন পর তাঁর 'কার্ভস'-এ মন ভরল ভক্তদের

নিজের হট ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন নুসরত। সেই ছবিতেও একের পর এক ট্রোলাররা এসে তাঁকে প্রশ্ন করে যায়, কী হল, নাসা থেকে বিজ্ঞানীরা এলেন না। আপনি কি টিকটক করবেন না দিদি। একটিও প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই তিনি দেননি। তবে তাঁর এই হট ছবিও তাঁকে ট্রোলিংয়ের হাত থেকে বাঁচাতে পারল না। ট্রোলাররা তাঁর যেকোনও নতুন পোস্টেই ভীড় জমাবে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর ভিডিও শেয়ার করে সকলে বলে চলেছে, নাসায় বিজ্ঞানীরা কি তাহলে এবার থেকে চাঁদে যাওয়ার উপায় না ভেবে, টিকটকের বিকল্প অ্যাপের কথা ভাবতে হবে। 

আরও পড়ুনঃক্রপ টপে হটনেস নাকি সাদা শাড়িতে বঙ্গতনয়া, কোন মনামীকে বেছে নেবেন আপনি

 

এমনই নানা কমেন্টে নুসরতকে ট্রোল করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত ঘূর্ণিঝড় আমফানের সময় তাঁকে এক নেটিজেন ট্রোল করতে আসে। নুসরত জাহানকে সাংসদ হওয়ার দায়িত্ব বোঝাতে এসে নিজেই ট্রোলড হয়ে বসল নেটিজেন। "বাংলা জ্বলছে কিছু করুন আপনি। আপনি কেবলমাত্র একজন তারকা নন, বসিরহাটের এমএলএ-ও। তাই আপনাকে বলা।" এর উত্তরে খুব মিষ্টি ভাষায় কড়া জবাব দিলেন নুসরত। "রিল্যাক্স। বাংলা এখনও ঠিকভাবেই চলছে। আর আমি একজন এমএলএ নই।"