১৫ আগস্ট। লকডাউন,  করেনা ভাইরাস নিয়েও চলছে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি। যদিও দেশপ্রেমের জন্য নির্দিষ্ট কোনও দিন হয় না। প্রতিটি দিনই স্বাধীনতা উদযাপনের দিন। আজ ভারতের ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবস। স্বাধীনতা দিবস পালন করলেই যে আমরা স্বাধীন হয়েছি তা কিন্তু নয়। স্বাধীনতা অর্থ ভিন্ন। একেক জনের চোখে স্বাধীনতার স্বাদ একেক রকমের।  কেউ ভালবাসে আঁকতে, কেউ গান করতে আবার কেউ নিজেকে সুন্দর করে সাজাতে, অথবা কেউ  ভালবাসে রান্না করতে সকলের মনের মধ্যে একটা সুন্দর সাজানো স্বপ্নের বাগান থাকে। যা কিনা একান্তই নিজের। কিন্তু সেই সুন্দর বাগানে নিজের ইচ্ছেমতো বিচরণ করার সেই স্বাধীনতাটা কই? মুক্ত মনে সেই সমস্ত সুপ্ত ইচ্ছেরা ডানা মেলতে পারে কি আদৌই? এইরকমই নানা ভাবনা নিয়ে স্বাধীনতা দিবসে নতুনের আহ্বানের ডাক দিয়েছেন সাংসদ অভিনেত্রী নুসরত জাহান।

 

 

আরও পড়ুন-'মহামারীতে লড়ে যাওয়া যোদ্ধাদের দিন আজ', ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে অমিতাভের শুভেচ্ছাবার্তা...

 বহু বছর হয়ে গেছে যে আমরা স্বাধীন হয়েছি, আমাদের দেশ স্বাধীন হয়েছে। কিন্তু হাজারে প্রশ্ন আজও মনে সংশয় তৈরি করে, সত্যিই আমরা স্বাধীন তো? যারা  কিনা হাতা-খুন্তি হাতে নিয়ে সারাটা দিন অবলীলায় রান্নাঘরেই কাটিয়ে দেয়, হয়তো তিনিও একদিন স্বপ্ন দেখতেন গিটারে সুর তোলার কিংবা রং-তুলির টানে ক্যানভ্যাস রাঙিয়ে তোলার। সেই স্বপ্নগুলো আদৌ পূরণ হয় তো, নাকি অচিরেই মনের মধ্যে দম বন্ধ করে নিজেকে শেষ করে দেয়। এই স্বাধীনতা দিবসে মন খুলে বাঁচার ডাক দিলেন নুসরত জাহান। দেখে নিন ভিডিওতে।

 

আরও পড়ুন-'মনের দিক থেকে চিন্তা-ভাবনারা এখনও পরাধীন ', ৭৪ তম স্বাধীনতা দিবসে 'স্বাধীন' ভাবনার ডাক মিমির...

পরণে সাদা সালোয়ার, হাতে ম্যাচিং চুড়ি, রং-তুলির ক্যানভাসে টান, গিটারে সুর সব মিলিয়ে স্বাধীনতাকে ফিরিয়ে দেওয়ার এক প্রচেষ্টা বলা চলে। সম্প্রতি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রাণ খুলে স্বাধীন ভাবে বাঁচারই ইঙ্গিত দিয়েছেন নুসরত। যেই না পাওয়া গুলো অপূর্ণ থেকে গেছে সেগুলিকে আবার নতুন করে শুরু করতে হবে। যার চোখ ধর্ম নিরপেক্ষ ভারতবর্ষের স্বপ্ন, যিনি ধর্মের চোখরাঙানিকে উপেক্ষা করে বুক চিতিয়ে  বলেন, 'ঈশ্বর এক ও অদ্বিতীয়। আমি ধর্মের ভেদাভেদ মানি না। আমি যেমন কোরান পড়েছি,  তেমন গীতা ও বাইবেল পড়েছি। কোথাও ধর্মের ভেদাভেদ ও হানাহানির কথা বলেনি। আমরা প্রাণ খুলে বাঁচব, মন খুলে বাঁচব, মুক্ত মনে বাঁচব, সকলে মিলে একসঙ্গে ভেদাভেদ ভুলে বাঁচব।' এই স্বাধীনতা দিবসে হোক নতুন অঙ্গীকার।