বহু তিক্ততার পর যখন সম্পর্কে ফেরার  ইচ্ছেও হারিয়ে যায় ,তখনই বোধয় কিছু মিরাকল ঘটে। তারপর দুজনেরই অজান্তে সময়-ই হয়ত বড় রোল প্লে-করে। ভাবনা চিন্তার বাইরে গিয়েই বোধয় হঠাৎ  কোনও একদিন দেখা হয়  পুরনো প্রেমের- নতুন ফ্রেমে। আচ্ছা তখন ঠিক কি হয়! আবার কি সেই প্রথমের দিনগুলি ফিরে আসে নাকি অন্য কিছু?  না ভেবে এগিয়ে যাওয়ার  একটা লোভ হয় , যদি কিছু ভাল অপেক্ষা করে সামনে। তাই সেই  সমস্ত দন্ধকে পিছনে ফেলে তাই নিজেদের ভেঙ্গে যাওয়া সম্পর্ককে নতুন করে চেনার গল্প  নিয়েই অতনু ঘোষের আগামী ছবি ‘রবিবার’।

আরও পরুন, রহস্যের সমাধানে এবার পরম-রূদ্র জুটি, মুক্তি পেল ছবির পোস্টার

সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে অতনু ঘোষের নতুন ছবি 'রবিবার'-এর পোষ্টার। এই প্রথম জয়া এবং প্রসেনজিত এক সঙ্গে একই ফ্রেমে কাজ করছেন। তবে জয়ার সঙ্গে অতনু ঘোষ 'বিনি সুতোয়' ছবিতেও কাজ করেছেন। 'ময়ূরাক্ষী'-তে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়-এর সঙ্গে কাজ করার পর এটাই  তাঁর অন্যতম কাজ। একটা সাক্ষাতকার দিতে গিয়ে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় জানান যে ,  অতনু ঘোষ এমন একজন পরিচালক, যাঁর সঙ্গে কাজ করার জন্য যে কোনও অভিনেতাই উৎসাহী  হয়ে থাকে। একদম অন্য রকম ভাবে অতনু ঘোষ গল্পটা বলতে জানেন বলে মনে করেন প্রসেনজিৎ। অসীমাভের মত চরিত্র এভাবে কেউ ভাবেন না বলেও মন্তব্য করেন প্রসেনজিৎ।    

আরও পড়ুন,প্রকাশ্যেই কথোপকথন, শুভশ্রী-মিমি সম্পর্কের বরফ কি তবে গলার পথে

ছকভাঙা, খানিক বোহেমিয়ান অসীমাভ আর স্মার্ট-কর্পোরেট অফিসার সায়নির পনেরো বছর পরে দেখা। প্রখর বুদ্ধিদীপ্ত দু’জন মানুষের মধ্যেকার ‘ব্যাটল অফ উইটস’ই এ ছবির উপজীব্য। বহু একটা পুরনো ভালবাসা পুরোপুরি শেষ হয়ে যাওয়ার পরও যেন বলে,'শেষ হয়ে হইল না শেষ'।  তাই সকাল থেকে রাত অবধি একটা পুরো দিন কিভাবে কাটায় তারা ,তাই নিয়ে এই গল্প এগতে থাকে। তাই সবসময় যে রবিবার ছুটির দিন হিসেবেই আসে,তেমন টা নয় কিন্তু।মাঝে মাঝে ছুটির দিন গুলিও আসে একেবারে অজানা কিছু মুহূর্ত নিয়ে,সেটা আর যাইহোক ছুটি পুরনো প্রেমকে তাদের সম্পর্ক থেকে।  আসলে 'তখন তেইশ','এক ফালি রোদ' প্রতিটার ছবির মতই এই ছবিতেও পরিচালক অতনু ঘোষ সবার মনের কথাই বলেন। কারন মনস্তত্ত ই যে তার অন্যতম প্রিয় বিষয়। 

আরও পড়ুন ,বিতর্ক উসকে প্রকাশ্যে গুমনামী-র ট্রেলার, মুখার্জি কমিশন থেকে আজাদ হিন্দ ফৌজ, বাদ রইল না কিছুই


পূজার আগেই 'রবিবার' ছবির  শুটিং শেষ হচ্ছে।