১৯৮৫ সাল থেকে টলিউডের যাত্রা শুরু। সত্যজিৎ রায়ের হাতেই প্রথম আত্মপ্রকাশ করেছিলেন স্বাতিলেখা সেনগুপ্ত। ছবির নাম ছিল ঘরে বাইরে, বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। সেই জুটি আবারও পর্দায় ফিরেছিল ২০১৫ সালে, ছবির নাম বেলা শেষে। পরিচালনাতে ছিলেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়। এই ছবিতে মুখ্য ভুমিকাতে অভিনয় করেছিলেন স্বাতিলেখা ও সৌমিত্র। জুটি দ্বয়ের অভিনয়তেই বেলা শেষে সকলের মনে জায়গা করেনিয়েছিল। বক্স অফিসে ঝড় তুলেছিল এই ছবি। 

আরও পড়ুনঃ 'পরিবারের সঙ্গে সময় কাটিয়ে ভালো স্মৃতি তৈরি করুন', করোনায় খোলা চিঠি অনুষ্কার

তবে সেই ছবি যে পৌঁচ্ছে যাবে শাহেনশাহর কাছে তা স্বাতিলেখা দেবী কল্পনাও করেননি। কিন্তু ছবি দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন। অনবদ্য অভিনয়ের জন্য স্বাতিলেখাকে চিঠি পাঠিয়েছিলেন অমিতাভ। সারা জীবনের প্রাপ্তির মধ্যে এটি অন্যতম। বেলা শেষে ছবির সিক্যুয়েল বেলা শুরু ছবির কাজ নিয়ে এখন ব্যস্ত রয়েছেন অভিনেত্রী। টানা ৫০ বছর একসঙ্গে কাটানোর পরেও পরিস্থিতি বাধ্য করায় তাঁদেরকে আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নিতে-এই প্রেক্ষাপটে তৈরি ছবিতে অভিনয় করেছিলেন-  সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, স্বাতিলেখা সেনগুপ্ত, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, মনামি ঘোষ, ইন্দ্রানী দত্ত।

আরও পড়ুনঃ চুপিসাড়ে করোনা মোকাবিলা আর্থিক দান, জানুন বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্টের কাহিনি

প্রথম থেকেই অমিতাভের সঙ্গে দেখা করার ইচ্ছে ছিল স্বাতিলেখা সেনগুপ্তর। এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়ে ছিলেন, কলকাতায় অভিনেতা এসেছেন বহুবার। কিন্তু কোনও বারই দেখা করা সম্ভব হয়নি। সকলের মাঝে গিয়ে স্যার স্যার বলে বিরক্ত করার পক্ষপাতী তিনি নয়। তবে এই চিঠি তিনি সারা জীবন আজলে রাখবেন। অভিনয় জীবনের অন্যতম সম্পদ হয়ে থাকবে অমিতাভের এই চিঠি। 

করোনা মোকাবিলায় রক্ষা করুন নিজেকে, মেনে চলুন 'হু' এর পরামর্শ

সাবধান, করোনা আতঙ্কের মধ্যে এই কাজ করলেই হতে পারে জেল

কী করে করোনার হাত থেকে রক্ষা করবেন আপনার বাড়ির বয়স্ক সদস্যদের, রইল তারই টিপস

শরীরে কীভাবে থাবা বসায় করোনা, জানালেন বিশেষজ্ঞরা