পত্রলেখা বসু চন্দ্র, বর্ধমান:  উলটপুরাণ! শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মারধর করার পর অপমানে এবার আত্মহত্যা করলেন এক যুবক। সুবিচারের আশায় মৃত্যুর আগে নিজের বক্তব্য মোবাইলে রেকর্ডও করে গিয়েছেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কালনার নাদনঘাটে।

আরও পড়ুন: জঙ্গলের রাস্তায় সবজি বিক্রেতার পথ আটকাল হাতি, সবজি খাইয়ে বাঁচল নিজের প্রাণ
 
মৃতের নাম  অর্জুন দেবনাথ। বাড়ি, নানদঘাটের ভাতশাল গ্রামে। পেশায় তিনি ছিলেন হোটেলের কর্মী। স্ত্রী ও মেয়ে-কে নিয়ে সংসার। কিন্তু দাম্পত্যজীবনে সুখী ছিলেন না অর্জুন। প্রতিবেশীরা জানিয়েছেন, সাংসারিক নানা বিষয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি লেগেই থাকত। কয়েক মাসে আগে মেয়ে-কে পাশের গ্রামে বাপের বাড়িতে চলে যান অর্জুনের স্ত্রী। কিন্তু তাতেও সমস্যা মেটেনি। আলাদা থাকাকালীন দু'জনের মধ্যে ফের অশান্তি হয়। এরপরই ঘটে বিপত্তি।

আরও পড়ুন: পুরুলিয়ার জঙ্গলে 'মানুষরূপী জন্তু', ভাইরাল ছবিকে ঘিরে তোলপাড় নেটদুনিয়ায়

মৃতের পরিবারের লোকদের অভিযোগ, কয়েক দিন আগে বাড়িতে চড়াও হয়ে অর্জুনকে বেধড়ক মারধর করেন তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকেরা। ফলে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন ওই যুবক। শেষপর্যন্ত মোবাইলে একটি ভিডিও বানিয়ে গলা দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। মৃতদেহটি ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। শুরু হয়েছে তদন্ত। দোষীদের কঠোর শান্তির দাবি তুলেছেন সকলেই।