এখনও পর্যন্ত এদেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঘটনায় সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে মহারাষ্ট্র। ইতিমধ্যে এই রাজ্যে আক্রান্তের সংখ্যা ২০০ গণ্ডি পেরিয়ে গিয়েছে। আর এর মধ্যে সবচেয়ে ভয় ধরাণ খবর হল মহারাষ্ট্রে করোনা সংক্রমণের শিকার হয়েছেন একই পরিবারের ২৫ সদস্য। 

মহারাষ্ট্রে করোনার এপিসেন্টার বলা হচ্ছে সাঙ্গলিকে। আর এখানেই একই পরিবারের ২৫ জন সদস্যের শরীরে মিলেছে এই মারণ ভাইরাসের নমুনা। আর এই ঘটনাই এক বিশেষজ্ঞদের ভাবিয়ে তুলছে। সম্প্রতি এই পরিবারের ৪ সদস্য সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছিলেন। ২৩ মার্চ ৪ জনেরই করোনাভাইরাস পরীক্ষায় পজিটিভ ফল আসে। এর এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই পরিবারের আরও ২১ সদস্য আক্রান্ত হয়ে পড়লেন কোভিড ১৯ রোগে। আক্রান্তদের মধ্যে রয়েছে এক বছরের বালকও। 

'আমার সঙ্গে করুন যোগাসোন', লকডাউনে সুস্থ থাকতে দেশবাসীর জন্য ভিডিও পোস্ট প্রধানমন্ত্রীর

এবার কি করোনা আক্রান্ত ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু, ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য

দেশে বাড়ান হচ্ছে নাকি লকডাউনের মেয়াদ, কানাঘুষোর জবাব দিলেন ক্যাবিনেট সচিব

জেলা কালেক্টর অভিজিৎ চৌধুরি জানিয়েছেন, "ইসলামপুর তহসিলের বাসিন্দা বড় পরিবারটি একটি ঘুপচি এলাকায় থাকত। সেই কারণেই সংক্রমণ দ্রুত পরিবারের অন্য সদস্যদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে।" 

একই পরিবারের ২৫ জনের আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় অনেকেই গোষ্ঠী সংক্রমণের ভয় পাচ্ছেন। কারণ এই পারিবারের সদস্যদের সংস্পর্শে মানুষদের শরীরেও বাসা বাঁধতে পারে মারণ ভাইরাসটি। যদিও এলাকায় এখনও পর্যন্ত গোষ্ঠী সংক্রমণের কোনও খবর নেই বলেই দাবি করছে জেলা প্রশাসন। 

সাঙ্গলির এই পরিবারের ৪৭ জন সদস্যের শরীরে করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল। তাঁদের মধ্যে ২৫ জনের ফল পজিটিভ এসেছে। আক্রান্তদের সাঙ্গলিতেই আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। তাদের সকলের অবস্থাই স্থিতিশালী বলে জানা যাচ্ছে। পাশাপাশি পরিবারটির সংস্পর্শে আসা ৩২৫ জনকেও হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা কালেক্টর অভিজিৎ চৌধুরি।