নেট দুনিয়ায় হইচই ফেলে দিলেন শশী থারুর। প্রধানমন্ত্রী হঠাৎ কেন মোম জ্বহালতে বললেন, এই প্রশ্ন যখন সকলের মনে কুঁডড়ে কুঁড়ে খাচ্ছে, তখন কংগ্রেস সাংসদ দিলেন ৯ সংখ্য়ার তত্ত্ব। এদিন শশী থারুর এক টুইট করে বলেন, মোদী আকস্মিক কোনও কারণে মোম জ্বালতে বলছেন না। এর পিছনে রয়েছে শুভ-অশুভের গভীর রহস্য।

প্রথমেই তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ৯ সংখ্য়ার যোগ দেখিয়ে দেন। তাঁর দাবি, প্রধানমন্ত্রী রাম নবমীতে, সকাল ৯ টায়, ৯ মিনিট বক্তৃতা করেছেন। আবার সেই বক্তৃতায় দেশবাসীকে রবিবার রাত ৯ টায় প্রদীপ এবং মোমবাতি জ্বালাতে বলেছেন। এর মধ্য দিয়ে তিনি ৯ নম্বরের সঙ্গে জড়িত হিন্দু ধর্মের সমস্ত শুভ উপাদানগুলিকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে আহ্বান জানাচ্ছেন। এরপরই অবশ্য তিরুবনন্তপুরম সাংসদের খোঁচা, 'ব্যাক টু রাম ভরোসে?' অর্থাৎ, রামের ভরসায় ফিরে গেলেন?

মজার বিষয় হল, তাঁর এই ব্যাঙ্গ-বিদ্রুপ মুখ বুজে সহ্য করেননি মোদীভক্তরা। একটি টুইটার ব্যবহারকারী থারুর-কে মনে করিয়ে দেন, রাম নবমী বৃহস্পতিবার ছিল, আজ দশমী। থারুরের বাড়িতে পঞ্জিকা নেই কিংবা পঞ্জিকা থাকলেও তা ভুল বলেন তিনি। কিন্তু, দিয়া কেন জ্বালতে হবে, অর্থাৎ থারুরের ব্যাঙ্গের মূল অংশটির কোনও উত্তর অবশ্য এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কেউ দেননি।

এর আগে, অবশ্য আরও এক টুইটে শশী থারুর, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে 'প্রধান শোম্যান' হিসাবে ব্যঙ্গ করেন। তাঁর অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রী 'মানুষের বেদনা, বোঝা, তাদের আর্থিক উদ্বেগ কীভাবে কমিয়ে আনবেন' সে বিষয়ে কিছুই বলেননি। 'ভবিষ্যতের কোনও দৃষ্টিভঙ্গি বা লকডাউন-পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে তিনি যে বিষয়গুলি বিবেচনা করছেন সেগুলি জানালেন না'। নরেন্দ্র মোদীকে তিনি 'ছবি তোলার সুযোগ সন্ধানী প্রধানমন্ত্রী' বলে আখ্যা দিয়ে বলেন, এটা তাঁর আরও একটি 'ফিল গুড' মুহূর্ত তৈরির প্রচেষ্টা।

লকডাউনই জন্ম করোনা আর কোবিডদের, আলাপ করুন তাদের সঙ্গে

করোনা-রোধে হল না সরায়ুর অমৃত আহরণ, অযোধ্যায় 'ইন্দিরা' অভিশাপে বিদ্ধ মোদী ও যোগী

ভিন রাজ্য থেকে আসা শ্রমিকদের ওপর স্প্রে, যোগীর রাজ্য নিয়ে সরব স্বস্তিকা