আবারও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। এবার সংঘাত ত্রাণ নিয়ে। মঙ্গলবার একটি ভিডিও বার্তায় রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় বলেন, কেন্দ্রের পাঠান ত্রাণ ঠিকমত বিলি হচ্ছে না রাজ্যে। ত্রাণ নিয়ে গত ১৯ এপ্রিলই তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ানের সঙ্গে কথা বলেছিলেন। তখনই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছিলেন সব রাজ্যেই ত্রাণ পাঠান হয়ে গেছে। কেন্দ্র কোনও ত্রুটি রাখেনি বলেও জানিয়েছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু তারপরেও কেন  সকল দুঃস্থ মানুষ ত্রাণ পাচ্ছেন না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। এরপরই রাজ্যপাল ত্রাণ বন্টন নিয়ে নিজেই উদ্যোগ নেন। জগদীপ ধনকড়ের কথায় তাঁরই উদ্যোগের পরই রাজ্য সরকার সক্রিয়তা দেখায়।  ফুড কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া থেকে মঙ্গলাবারই চাল নিতে শুরু করে মমতার সরকার। 

"

এখানেই শেষ করেননি রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। ভিডিও বার্তায় আশা প্রশান করেছেন যাঁরা ক্ষুধার্ত তাঁদের কাছেই যেন এই চাল পৌঁছে যায়। যাদের প্রয়োজন নেই বা কালো বাজারি করছে তাঁদের কাছে এই চাল যাতে না পৌঁছায় রাজ্য সরকারকে ঘুরিয়ে এই ব্যবস্থা করতেও বলেছেন তিনি। ত্রাণের জন্য পাঠান এই চাল নিয়ে যাতে রাজনীতি না করা হয় তারও বার্তা দিয়েছেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি রাজ্যপালের আরও অভিযোগ রেশন ডিলারদের ঠিকমত কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না। তাঁদের ধমক দেওয়া হচ্ছে। আগামী দিনে তা যেন বন্ধ করা হয়। 

আরও পড়ুনঃ করোনা মোকাবিলায় ভারতের সঙ্গে তুলনা, ট্রাম্প বললেন রেকর্ড করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ...

আরও পড়ুনঃ করোনা ছড়ানোর পর ভারতে পিপিই সংকটের কারণও নাকি সেই চিন, অভিযোগ হোয়াইট হাউসের ...

আরও পড়ুনঃ বেঙ্গালুরুতে বসে চমক বঙ্গ বিজ্ঞানীর, করোনাকে জব্দ করতে 'ট্রিবই'মাস্কের আবিষ্কার ...

এদিন রাজ্যপাল কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সহযোগিতা করার কথা বলেও সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়েছেন। এইসময় নতুন করে মুখ্যমন্ত্রী যাতে কেন্দ্রের সঙ্গে আর কোনও বিতর্কে না জড়িয়ে পড়েন তারও আবেদন জানিয়েছেন রাজ্যপাল। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সহযোগিতা করারও আর্জিও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে। সকালবেলায় এই বার্তা দিয়ে রাজ্যপাল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে সকলের কাছেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে সহযোগিতা করার আবেদন জানিয়েছেন।