এ রাজ্যে আক্রান্তদের পরিবারেও ছড়াচ্ছে করোনা সংক্রমণ। মেদিনীপুরের যুবকের বাবার শরীরে মিলল জীবাণু। চিকিৎসার জন্য তাঁকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে ঘাটালের দাসপুরে। স্থানীয় বাসিন্দাদের আশ্বস্ত করেছেন স্বাস্থ্য দপ্তরের আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন: লকডাউনে ক্রিকেট খেলতে বাঁধা, ঘুম ভেঙে মালিক দেখল পুকুরে কোনও মাছ আর নেই বেঁচে

সোনার কাজ করতেন মুম্বইয়ে। ২২ মার্চ বাড়ি ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরের নিজামপুর গ্রামের এক যুবক। প্রথমে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে। লক্ষণ সন্দেহজনক হওয়ার রোগীকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে। আইসোলেশন থাকাকালীন সোমবার রাতে করোনা ধরা পড়ে ওই যুবকের। কলকাতার বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তাঁর। করোনা আক্রান্ত যুবকের বাবাকে ভর্তি করা হয় মেদিনীপুর জেলা হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে।  নিজামপুর গ্রামের ঢোকার রাস্তাটিও সিল করে দেয় পুলিশ। হোম আইসোলেশনে থাকার পরামর্শ দেওয়া গ্রামবাসীদের। পশ্চিম মেদিনীপুরের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরিশচন্দ্র  বেরা জানিয়েছেন, আক্রান্ত যুবকের সংস্পর্শে আসার কারণে তাঁর বাবা সংক্রমিত হয়েছেন। তবে পরিবারের অন্য সদস্য কিংবা গ্রামবাসীদের এখনও সন্দেহজনক উপসর্গ পাওয়া যায়নি। মোটের উপর সুস্থই রয়েছেন সকলেই। আতঙ্কিত হওয়ার কোনও কারণ নেই।

আরও পড়ুন: ভিন রাজ্য থেকে ফিরে জঙ্গলে 'নিভৃতবাস', করোনা সচেতনতার নজির নদিয়ার চার যুবকের

আরও পড়ুন: লকডাউনে তালা পড়ে গেছে রেড লাইট এরিয়ায়, ত্রাণ চেয়ে আর্জি দেহ পসারিণীদের

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে করোনায় আক্রান্ত হন হুগলির শেওড়াফুলির এক প্রৌঢ়। এরপর যথারীতি তাঁর পরিবারের লোক, কয়েকজন প্রতিবেশী, এমনকী পরিচারিকার বাড়ির লোককেও ভর্তি করা হয় শ্রীরামপুরের ওয়ালস হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে। আক্রান্তের ভাই ও ছেলের করোনা ধরা পড়েছে। এবার সংক্রমণ ছড়াল মেদিনীপুরে আক্রান্ত যুবকের পরিবারেও।