লকডাউনের বাজারে তিন মাস বিনামূল্যে গ্যাস সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বাড়িতে বসেই সিলিন্ডার পেয়ে যাবেন গ্রাহকরা। কিন্তু সেকথা শুনছে কে!গ্যাস সরবরাহকারী সংস্থার অফিসের সামনে ভিড় বাড়ছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না কেউ। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে বীরভূমের রামপুরহাটেও। 

আরও পড়ুন: সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই, বিনামূল্যে গ্যাস সিলিন্ডার পেতে গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন

দিন কয়েক আগে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ঘোষণা করেছেন উজ্জ্বলা প্রকল্পে তিনমাসে তিনটি গ্যাস দেওয়া হবে বিনামূল্যে। সিলিন্ডারের দাম বাবদ টাকাও দেওয়া হচ্ছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টেও। কিন্তু হলে কী হবে! অধিকাংশ উপভোক্তারা তো নিয়মিত গ্যাস তোলেননি। কেউ কেউ আবার গ্যাস নিলেও অর্থাভাবে ওভেন কিনতে পারেননি। ফলে খাতা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। মোবাইল নম্বর সংযুক্ত না থাকায় অনেকেই আবার গ্যাস বুকও করতে পারছে না। গত দু'দিন ধরে গ্রাহকদের লম্বা লাইন পড়ছে রামপুরহাট বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া একটি গ্যাসের দোকানে। দোকানের কর্ণধার মিহির বিশ্বাস বলেন, “এখান থেকে কাউকে গ্যাস দেওয়া হচ্ছে না। আমরা বাড়ি বাড়ি গ্যাস পৌঁছে দিচ্ছি। কিন্তু কিছু মানুষ আতঙ্কে ভিড় জমাচ্ছেন। কেউ ভাবছেন টাকা ঢোকেনি। কেউ ভাবছেন গ্যাস পাবেন না। কিছু মানুষ না জেনেই ভিড় জমাচ্ছেন। আমরা সাত সকালে খরি দিয়ে দন্ডি কেটে দিয়েছি। কিন্তু মানুষ সেই নিয়মকানুনের তোয়াক্কা করছে না।' পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন পুলিশকর্মীরা।

আরও পড়ুন: "দূরত্ব বজায় রাখুন" প্ল্যাকার্ড ঝুলিয়ে বাজারে , ভাইরাল হল যুবকের কীর্তি, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন: করোনা সতর্কতায় নজির, ১৪টি পরিবারকে সংবর্ধনা দিল পুরসভা

শুধু বীরভূমেই নয়, উজ্জ্বলা প্রকল্পে গ্যাস সিলিন্ডার দেওয়াকে কেন্দ্র করে একই ছবি হাওড়ার উলুবেড়িয়ায়। গত তিন দিন ধরে উলুবেড়িয়ার একটি গ্যাস সরবরাহকারী সংস্থা অফিসের সামনে গ্রাহকদের দীর্ঘ লাইন চোখে পড়ছে। কিন্তু লাইনে দাঁড়ানোর সময়ে কেউই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না বলে অভিযোগ। এমনকী পুলিশের হস্তক্ষেপে সমস্যা মিটছে না বলে অভিযোগ।