সোশ্যাল মিডিয়ায় অধিনায়ক মাশরাফি মোর্তাজার সমালোচনা করেছিলেন। এরপরই তাঁকে এক গ্রামীন হাসপাতালে বদলি করে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশের এক শিশু ক্যানসার বিশেষজ্ঞ। এমনকী তাঁকে যেখানে বদলি করা হয়েছে সেখানে নাকি ক্যানসারের চিকিৎসার বিভাগই নেই।

বাংলাদেশে মাশরাফে অত্যন্ত জনপ্রিয়। শুধু তাই নয় একই সঙ্গে তিনি শাসক দলের এক সাংসদও বটে। জানা গিয়েছে, কয়েক মাস আগে তিনি তাঁর সংসদ এলাকার এক হাসপাতালে গিয়ে বেশ কয়েকজন ডাক্তারকে অনুপস্থিত দেখে ভয়ঙ্কর রেগে যান এবং এক ডাক্তারকে ফোন করে অত্যন্ত রুঢ় ভাষায় বকাঝকা করেন। তাঁর এই ফোনালাপের ভিডিও বাংলাদেশে ভাইরাল হয়েছিল। সাধারণ জনতা মাশরাফির ওই আচরণকে স্বাগত জানালেও, ডাক্তারদের মধ্যে এই নিয়ে বেশ ক্ষোভ সৃষ্টি হয়।

আরও পড়ুন - কপিল থেকে কালিস যা পারেননি, তাই করে দেখালেন সাকিব! বিশ্বকাপে হল অনন্য ডাবল

আরও পড়ুন - চাহালের রেকর্ডে শ্রীনাথের শাপমুক্তি! কিন্তু এই লজ্জা কার

আরও পড়ুন - সত্যিই কি বুড়ো হলেন ধোনি, নাহলে এত বড় ভুল হল কী করে! অবাক কোহলিরা, দেখুন ভিডিও

বেশ য়েকজন ডাক্তার সোশ্য়াল মিডিয়াতেই বাংলাদেশী ক্রিকেট অধিনায়কের উপর ক্ষোভ উগরে দেন। তাঁদেরই একজন ছিলেন শিশু ক্যানসৈার বিশেষজ্ঞ রেজায়ুল করিম। চিটাগাঙ-এর এক ক্যনসার হাসলপাতালে তিনি কর্মরত ছিলেন। কিন্তু তিনি অভিযোগ করেছেন মাশরাফির সমালোচনা করার দুই মাসের মধ্যেই রাঙামাটি জেলার এক গ্রামীন হাসপাতালে তাঁকে বদলি করে দেওযা হয়। যেখানে কর্কট রোগের চিকিৎসার বিভাগই নেই।

রেজায়ুল করিম বাংলদেশের যথেষ্ট নামকার শিশু ক্যানসার বিশেষজ্ঞ। তাঁর এই ঘটনা সেই দেশে যথেষ্ট সাড়া ফেলেছে। বাংলাদেশে মাশরাফির ক্রিকেটার ও মানুষ হিসেবে যে জনপ্রিয়তা, তারই শিকার হয়েছেন তিনি বলে মনে করা হচ্ছে।