বুধবার এই বারের মতো ভারতের ক্রিকেট বিশ্বকাপ জেতার স্বপ্ন শেষ হয়ে গিয়েছে। আর এই ম্যাচে ব্যাটে বলে ফিল্ডিং-এ দুর্দান্ত পারফর্ম করেছেন রবীন্দ্র জাদেজা। আর তারপরই তাঁর প্রসঙ্গ তুলে ভারতীয় দলের কোচ রবি শাস্ত্রীকে একহাত নিলেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

বিশ্বকাপের শুরুর দিকে জাদেজাকে খেলানোই হয়নি। গ্রুপের একেবারে শেষ ম্যাচে এসে সুযোগ দেওয়া হয়। সেমিফাইনালে আরেকটু হলে তিনি প্রায় একার হাতে ভারতকে এই ম্যাচ জিতিয়ে দিচ্ছিলেন। ৩৪ রান দিয়ে ১টি উিকেট নিয়েছেন তিনি। তারপর একটি দুরন্ত থ্রো-তে রান আউট করেছেন কিউইদের সর্বোচ্চ রান করা রস টেলরকে। তারপর ৩০ ওভারে ৯২ রানে ৬ উইকেট পড়ে গিয়েছে এই অবস্থায় ব্যাট করতে এসে করলেন ৫৯ বলে ৭৭ রান।  

আরও পড়ুন - ম্যাঞ্চেস্টারে জাদেজার অসি চালনা! ইলিয়ট হতে কি পারবেন

আরও পড়ুন - অবসন্ন, হতমান - আউট হওয়ার পরই ফিরলেন সোজা হোটেলে! অবসর নিয়ে ধোনি দলকে কী বলেছেন

আরও পড়ুন - ৪৫ মিনিটের খারাপ ক্রিকেট, তাতেই ছিটকে গেল দল! বিরাট বিশ্লেষণ

এদিন ম্য়াচের পর জাদেজার পারফরম্য়ান্সের কথা তুলে সৌরভ বলেন, হার্দিক আউট হওয়ার পর ভারত হারছে এটা তাঁরা প্রাক্তন ক্রিকেটাররা ধারাভাষ্যকারের বক্সে ধরেই নিয়েছিলেন। জাদেজা একাই ম্যাচ ঘুরিয়ে দিচ্ছিলেন। তার জন্যই ভারত এত কাছাকাছি পৌঁছায়। এরপরই দাদা বলেন, এতেই প্রমাণ হয় ক্রিকেটে কোনও স্থির গেম প্ল্যান বলে কিছু হয় না। একটা নির্দিষ্ট নীতি ধরে থাকলে ডুবতেই হয়। ক্রিকেটে একটা বিষয়কেই প্রাধান্য দেওয়া উচিত, তা হল ফর্ম।

২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট একসঙ্গে আর অশ্বিন ও রবীন্দ্র জাদেজাকে সীমিত ওভারের দল থেকে সরিয়ে দিয়েছিল। বলা হয়েছিল বিদেশে জেতার জন্য রিস্ট স্পিনারের প্রয়োজন। লেগ স্পিনার দরকার, চায়নাম্যান স্পিনার দরকার। কিন্তু জাদেজা সেই কথা ভুল প্রমাণ করে দিয়েছেন।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সরাসরি নাম না করলেও তাঁর ইঙ্গিত কোন দিকে তা বুঝে নিতে অসুবিধা হয় না। এমনিতেই কোচ শাস্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বিশেষ ভাল নয়। তাঁর নেতৃত্বাধীন ক্রিকেট পরামর্শদাততা কমিটি অনিল কুম্বলেকে ভারতীয় দলের কোচ বেছেছিল। পরে তাঁকে সরিয়ে রবি শাস্ত্রীকে কোচ করার দাবি তোলেন বিরাট কোহলি। সৌরভের কমিটিও রবিকেই কোচ হিসেবে মেনে নিতে বাধ্য হয়েছিল।