এজবাস্টনে এসেছিলেন, নায়কের পরাক্রম দেখতে। সেই সাধ পূর্ণ হয়েছে। কিন্তু তার সঙ্গে আরও বাড়তি কিছু নিয়ে গেলেন এক মহিলা ভারতীয় সমর্থক। একেবারে নায়ের সান্নিধ্য লাভের সুযোগ এল, তার আগে অবশ্য সহ্য করতে হয়েছে বলের প্রচন্ড আঘাতও।

বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের ৪০তম ম্য়াচে রোহিত আরও এক দুর্দান্ত শতরান করেন। চবতি বিশ্বকাপে এর আগে তিনটি শতরান করলেও হিটম্য়ানের বিধ্বংসী মেজাজটা ধরা পড়ছিল না। মঙ্গলবার কিন্তু প্রথম থেকেই মারমুখী ছিলেন ভারতের সহ-অধিনায়ক। ৯২ বলে ১০৪ রান করার পথে মারেন সাতটি চার ও পাঁচটি বিশাল ছয়।

আরও পড়ুন - ইতিহাস গড়লেন রোহিত! সাঙ্গাকে ছুঁয়ে ব্যাটন তুলে নিলেন দাদার হাত থেকে

আরও পড়ুন - বুমরা বলছেন স্পেশাল, হার্দিক বলছেন বোন! ছবি দেখেই 'মিনি হার্টঅ্যাটাক' মহিলা ভক্তদের

আরও পড়ুন - ক্যামেরা থেকে বিরাট-রোহিত, আকর্ষণের কেন্দ্রে এই বৃদ্ধা! দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন - স্ত্রী নন, আরেকজনের হাত দুরন্ত ফর্মের পিছনে! কার কথা বললেন রো'হিট'

আর সেই পাঁচটি ছয়ের একটিই গ্যালারিতে উড়ে গিয়ে আঘাত করেছিল ভারতীয় সমর্থক মীনা দেবীকে। ভারতীয় জার্সি গায়ে, ভারতের জাতীয় পতাকা নিয়ে বন্ধুর সঙ্গে দলকে সমর্থন করতে এসেছিলেন তিনি।

ব্য়াট করে প্যাভিলিয়নে ফেরার পরই রোহিত এই কাণ্ড জানতে পারেন। ম্যাচের পর কিন্তু সেই ছক্কার আঘাত একেবারে ভুলিয়ে দিলেন হিটম্য়ান। মীনা দেবী ও তাঁর বন্ধুকে ডেকে নেন রোহিত। তাঁদের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ কথাও বলেন। ঠিক কী বলেছেন রোহিত তা না জানা গেলেও, তাঁর শরীরি ভাষা দেখে বোঝা গিয়েছে মীনা দেবীকে তিনি রসিকতা করে বলছেন, গ্যালারিতে ওই বলটা তালুবন্দী করা উচিত ছিল তাঁর। এরপর একটি সই করা টুপিও ভক্তকে উপহার দেন রোহিত।

বলের আঘাত যে গুরুতর ছিল না তা ওই ভক্ত ও তাঁর বন্ধুর মুখ দেখেই বোঝা গিয়েছে। হাতের কাছে নায়ককে পেয়ে এবং তাঁর থেকে উপহার পেয়ে তখন সব চোট-আঘাত ভুলে গিয়েছিলেন।