বাংলাদেশ ম্যাচে আরও একটি দুরন্ত শতরান করলেন রোহিত শর্মা। চলতি বিশ্বকাপে এই নিয়ে মোট চারটি শতরান করলেন তিনি। এর আগে ২০১৫ বিশ্বকাপে চারটি শতরান করেছিলেন সাঙ্গাকারা। এদিন কতাঁর কীর্তিকে স্পর্শ করলেন রোহিত। আর ভারতীয়দের মধ্যে এর আগে এক বিশ্বকাপে সর্বাধিক শতরানের রেকর্ড ছিল প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের হাতে। ২০০৩ বিশ্বকাপে তিনি ৩টি শতরান করেছিলেন। ২০১৯-এ এসে দাদার হাত থেকে ব্য়াটন তুলে নিলেন হিটম্য়ান।

চলতি বিশ্বকাপে এর আগের তিনটি শতরানে রোহিতের চেনা আগ্রাসী খেলা দেখা যায়নি। এদিন কিন্তু একেবারে প্রথম থেকেই হিটম্য়ানের মেজাজে ব্য়াট করলেন তিনি। শুরুতে ৯০ রানের মাথায় একটি সুযোগ দিয়েছিলেন। কিন্তু মিড উইকেটে সেই ক্যাচ ফেলে দেন তামিম। আর তারপর তাঁর ব্য়াট থেকে আসে ৬টি চার ও ৫টি ছয়। মাত্র ৯০ বলে এদিন শতরান পূর্ণ করেন তিনি। এরপরই সম্ভবত তাঁর মনোসংযোগে কিছুটা ঘাটতি দেখা দেয়। আর তার জেরেই শতরান করার পর আর একটি চার মেরে ১০৪ রানে সৌম্য সরকারের বলে আউট হন।

তবে ভারতকে এটি দারুণ প্ল্যাটফর্ম দিয়ে যান তিনি। দ্বিতীয় বিশ্বকাপ খেলতে খেলতেই তিনি রোহিত মোট ৫টি শতরান করে ফেললেন। বিশ্বকাপের ইতিহাসে তাঁর চেয়ে বেশি শতরান রয়েছে আর একমাত্র সচিন তেন্ডুলকরের। তাঁর জুলিতে রয়েছে ৬টি শতরান। যেভাবে এগোচ্ছেন রোহিত তাতে এই বিশ্বকাপেই সচিনর রেকর্ড ভেঙে যেতে পারে।

আরও পড়ুন - সুন্দরী এই বাঙালি ধারাভাষ্যকারে বুঁদ সকলে, জানুন তাঁর কাহিনি

আরও পড়ুন - বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল - জায়গা বাকি তিনটি, লড়ছে পাঁচ দল

আরও পড়ুন - ভারত বনাম বাংলাদেশ ক্রিকেট প্রতিদ্বন্দ্বিতা, সবচেয়ে স্মরণীয় ও বিতর্কিত পাঁচ মুহূর্ত

সচিনের পর সর্বাধিক শতরান রয়েছে পন্টিং ও সাঙ্গাকারার। রোহিতের মতোই তাঁদেরও ৫টি করে শতরান আছে। কিন্তু তাঁরা যেখানে যথাক্রমে ৪২ ও ৩৫টি ইনিংস নিয়েছেন ৫টি শতরান করতে, সেখানে রোহিতের লাগল মোটে ১৫ ইনিংস।