অনিল কুম্বলে, ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম সেরা ম্যাচ উইনার। টেস্ট ক্রিকেটে তার উইকেট সংখ্যা ৬১৯। ভারতের ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ। একদিনের ক্রিকেটে তার শিকার ৩৩৭টি উইকেট। তার লেগ স্পিনের ভেলকির কাছে কাবু হয়েছে গোটা বিশ্ব। একমাত্র ভারতীয় বোলার হিসেবে এক ইনিংসে ১০ উইকেট নেওয়ার নজির রয়েছে তার নামে। তার বোলিংয়ের সামলাতে হিমসিম খেত বিশ্বের তাবড় তাবড় ব্যাটসম্যান। কিন্তু এহেন লেজেন্ড ক্রিকেটার নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেন যে ক্রিকেট বিশ্বে এমন ৫ ব্যাটসম্যান আছে তাদেরকে বল না করতে হয়নি বলে। 

আরও পড়ুনঃ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত বোর্ড প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভেই আস্থা সুনীল গাভাসকরের

পড়ে অবকা হলেন? যে অনিল কুম্বলের মত বোলারের মুখে এই কথা। কিন্তু তেমন ভাবার কোনও কারণ নেই। কিংবদন্তী স্পিনার যাদের বিপক্ষ ব্যাটসম্যান হিসেবে বল না করতে হওয়ার জন্য ভাগ্যবান মনে করেন তারা অন্য কেউ নয়, অনিল কুম্বলেরই সতীর্থ। সম্প্রতি  জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন বোলার পমি বাঙ্গওয়া র সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম  লাইভ সেনশনে যোগ দিয়েছিলেন অনিল কুম্বলে। সেখানে বাঙ্গোয়া কুম্বলেকে প্রশ্ন করেন, কাদের বল করতে হয়নি বলে নিজেকে ভাগ্যবান মনে করেন?  জবাবে কিংবদন্তি লেগ স্পিনার বলেন,'আমি ভাগ্যবান। কারণ সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, রাহুল দ্রাবিড়, ভিভিএস লক্ষ্মণ, বীরেন্দ্র সহবাগের মতো ব্যাটসম্যানদের আমি নেটে বল করেছি। ম্যাচের আগের দিন আমাকে ভাবতে হয়নি যে পরের দিন এদের বিরুদ্ধে আমাকে বল করতে হবে।'

আরও পড়ুনঃকরোনা আবহে এবারের আইপিএল পালটে দেবে গোটা দেশের মুড

আরও পড়ুনঃলকডাউনে অনুষ্কার সঙ্গে কাটানো সেরা মুহূর্ত কোনটি, জানালেন বিরাট কোহলি

একইসঙ্গে প্রতিপক্ষ হিসেবে কোন ব্যাটসম্যানকে বল করতে সব থেকে বেশি সমস্যার সম্মুখীন হতেন তার নামও জানিয়েছেন কুম্বলে। তিনি বলেছেন,'অনেক ব্যাটসম্যানই ছিলেন যাঁদের বিরুদ্ধে বল করতে সমস্যায় পড়তে হত। তবে সব চেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তাম লারাকে বল করার সময়ে। কারণ প্রতিটি ডেলিভারি খেলার জন্য লারার হাতে চার রকমের শট ছিল। আর লারাকে বল করার সময়ে সেটাই ছিল সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। ওকে বল করার সময়ে মনে হত এই বলটা করলে ওকে পরাস্ত করা যাবে। ঠিক তখনই লারা শট পরিবর্তন করে ফেলত। হয়ত হাল্কা করে ট্যাপ করে বল থার্ড ম্যান অঞ্চলে ঠেলে দিত।' পমি বাঙ্গওয়ার সঙ্গে লাইভ সেশনে অনিল কুম্বলের এই সরল স্বীকারোক্তি ভাল লেগেছে তার অনুগামীদেরও। তবে অনেকেই অনেকেই মজার ছলে বলছেন, যদি সত্যিই সচিন, সৌরভ, সেওয়াগ, দ্রাবিড়, লক্ষ্মণদের প্রতিপক্ষ হিসেবে বল করতে হত কুম্বলেকে তাহলে দর্শক হিসেবে জমজমাট লড়াইয়ের সাক্ষী হওয়া যেত।