করোনা ভাইরাস আতঙ্ক ক্রমশ ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে পৃথিবা জুড়ে। দ্রুত গতিতে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। যার প্রভাব পড়েছে খেল জগতেও। এবার করোনা আতঙ্কের জেরে স্থগিত হয়ে গেল বহু প্রতিক্ষীত বিশ্ব একাদশ বনাম এশিয়া একাদশ ম্যাচ। সাংবাদিক বৈঠক করে ম্যাচ আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্ট নাজমুল হাসান। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে মাস দুয়েক পরে ম্যাচ করা হবে বলেও জানানো হয়েছে বিসিবির তরফ থেকে। 

আরও পড়ুনঃ শনিবার গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে স্থির হবে আইপিএল ২০২০ এর ভবিষ্যৎ

'বঙ্গবন্ধু' মুজিবর রহমানের জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে ঢাকায় বিশ্ব একাদশ বনাম এশিয়া একাদশের মধ্যে দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচের উদ্যোগ নিয়েছেল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। ২১ ও ২২ মার্চ ঢাকার বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল দুটি ম্যাচ। এই ম্যাচে এশিয়া একাদশ টিমে ছিল মোট ৪ জন ভারতীয় ক্রিকেটার। এছড়াও দুই দলে থাকার কথা ছিল বিশ্ব ক্রিকেটের একাধিক তারকাদের। কার্যত চাঁদের হাট বসত ঢাকায়।  ম্যাচ উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিও চুড়ান্ত ছিল বিসিবির।  শুধু ম্যাচ নায় মুহূর্তকে স্মরণীয় করে রাখতে বিশেষ কনসার্টের আয়োজনও করা হয়েছিল। ম্যাচের ৩ দিন আগে ১৮ তারিখ মেগা কনসার্টের দিন ধার্য করা হয়েছিল। প্রধান শিল্পী হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল এর আর রহমানের। করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই সন্দেহ দানা বেধেছিল কনসার্ট ও ম্যাচের ভবিষ্যৎ নিয়ে। সুরক্ষার কথা ভেবে অবশেষে ম্যাচ ও কনসা্ট দুই স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের তরফ থেকে।

আরও পড়ুনঃ নিউজিল্যান্ড সফরের হার এখন অতীত, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নতুন শুরুর লক্ষ্যে টিম ইন্ডিয়া

আরও পড়ুনঃ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ফিরছে শিখর, হার্দিক ও ভুবি, প্রত্যাবর্তন কি স্মরণীয় হবে তিন ভারতীয় তারকার

সাংবাদিক বৈঠকে বিসিবি প্রেসিডেন্ট নাজমুল হক জানান, 'বিশ্ব জুড়ে ক্রমশ থাবা বসাচ্ছে করোনা ভাইরাস। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলিতে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে এই মারণ ভাইরাস। আমাদের ১৮ তারিখ কনসার্ট ও ২১ ও ২২ তারিখ দুটি ম্যাচ করা ইচ্ছে ছিল। কিন্তু করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের কারমে আমাদের নান সমস্যা হচ্ছে। তাই আপাতত দুটি ইভেন্টই পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরে তা আরও বড় ভাবে করা হবে। বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত ৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে। ফলে সাবধানতার জন্যই এই সিদ্ধান্ত বিসিবির।