নিউজিল্যান্ডের স্মৃতি, করোনা আতঙ্ক, বৃষ্টির ভ্রূকুটি, গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারদের প্রত্যাবর্তন সব মিলিয়ে ম্যাচ শুরুর আগেই ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ নিয়ে উত্তেজনা পৌঁছেছে চরমে। করোনা ভাইরাসের জেরে হাত মেলানো থেকে বিরত থাকবেন বলে জানিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটাররা। ভারতীয় ক্রিকেটারদেরও মেনে চলতে বলা হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ। বলে লালা না লাগানো থেকে শুরু করে ভক্তদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা প্রভৃতি অনেক বিধি নিষেধ।

আরও পড়ুনঃ করোনা ভাইরাসের জের, সংক্রমণ বাঁচাতে মানতে হবে একাধিক বাঁধা নিষেধ

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজে জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তন করেছেন শিখর ধাওয়ান, ভুবনেশ্বর কুমার, হার্দিক পান্ডিয়ার মতো তারকারা। তিনজনেই মরিয়া পারফরম্যান্স করে আবার দলে নিজেদের জায়গা পাকা করতে। ম্যাচের আগের দিনগুলিতে তিনজনকেই দেখা গেল অনেকক্ষণ নেট প্র্যাকটিস করতে। ভারতের আর এক তারকা রোহিত শৰ্মা এখনও সুস্থ হয়ে উঠতে পারেননি। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিনি যা চোট পেয়েছিলেন তা এখনও সারেনি। ওই চোটের জেরে বাকি নিউজিল্যান্ড সফরে দলের বাইরেই থাকতে হয়েছিল রোহিত শর্মাকে। 

আরও পড়ুনঃ নিউজিল্যান্ড সফরের হার এখন অতীত, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে নতুন শুরুর লক্ষ্যে টিম ইন্ডিয়া

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভালো পারফরম্যান্স করে নিউজিল্যান্ডের দুঃসহ স্মৃতি ভোলাতে চাইছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। টি-টোয়েন্টি সিরিজে নিউজিল্যান্ডকে ৫-০ ফলে উড়িয়ে দেওয়ার পর একদিনের সিরিজে ৩-০ এবং টেস্ট সিরিজে ২-০ ফলে হারতে হয়েছে তাদের। অপরদিকে ভারতে আসার আগে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে ওডিআই সিরিজে ৩-০ ফলে হারিয়ে এসেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেই ফলাফল আত্মবিশ্বাস জোগাবে তাদের। 

আরও পড়ুনঃ ৩ রা এপ্রিল অবধি ইতালিতে বন্ধ সবরকম খেলা, রোনাল্ডোদের ভবিষ্যৎ নিয়ে ধোঁয়াশা

রানে ফিরতে মরিয়া ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিও। নিউজিল্যান্ড সিরিজে তার পারফরম্যান্স ছিল একেবারেই হতাশাজনক। গোটা সফরে কেবল একটি অর্ধশতরান ছাড়া বলার মতো কিছুই করেননি তিনি। সেই স্মৃতি ভুলিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভালো পারফরম্যান্স করতে বদ্ধপরিকর তিনি।