সালটা ২০১৭। কিছুদিন আগেই ভারতীয় ক্রিকেটের দায়িত্ব উঠেছিল সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত প্রশাসদের হাতে। পাঁচ মাসের মধ্যেই বোর্ডের প্রশাসক প্রধান বিনোদ রাই রাহুল দ্রাবিড়কে একটি পদ বেছে নিতে বলেছিলেন। রাহুল তখন একদিকে আইপিএল ফ্রাঞ্চাইজির সঙ্গে যুক্ত এবং ভারতীয় জুনিয়র দলের কোচ। রাহুল অনেক বেশি টাকার আইপিএল ফ্রাঞ্চাইজির পদ ছেড়ে ভারতীয় জুনিয়র দলকে বেছে নেন। আর সেই দলটাই ২০১৮ সালে অনুর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হয়। ক্রিকেটার রাহুল, কোচ বা মেন্টর রাহুলের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার মত ক্ষমতা কারও নেই। কিন্তু আবার রাহুলকে নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আবরও সেই কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট। 

আরও পড়ুন - নাম না করে কোহলি-শাস্ত্রীদের তুলোধোনা করলেন যুবরাজ, প্রশ্ন তুললেন দল থেকে তাঁর বাদ পড়া নিয়ে

রাহুল জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির প্রধান হওয়ার পাশাপাশি ইন্ডিয়া সিমেন্টের কর্মী। তাই বিসিসিআই সংবাধিনার কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের যে নিয়ম রয়েছে সেটা মানা হচ্ছে না। এই অভিযোগ তুলে মধ্যপ্রদেশ ক্রিকেট সংস্থার এক সদস্য অভি়যোগ দাখিল করেছিলেন। বোর্ডের এথিক্স অফিসার ডিকে জৈন এই নিয়ে রাহুলকে নোটিশ দেন। নোটিশের কথা সামনে আসতেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁকে সমর্থন করেন আরও অনেকেই। বোর্ডের এথিক্স অফিসার বৃহস্পতিবার রাহুলের সঙ্গে কথা বলেন এই বিষয়ে। সুত্রের খবর রাহুলের বিরুদ্ধে ওঠা অভি়যোগ খারিজ করে দিতে চলেছেন তিনি। 

আরও পড়ুন - টি২০ বিশ্বকাপে ভারতীয় দলের ৪ নম্বরকে ভরসা দিতে চাইছেন রায়না

এথিক্স অফিসারকে একটি নোট পাঠিয়েছিলেন সিওএ প্রধান বিনোদ রাই। সেখানে রঘুরাম রাজনের উদাহরণ টেনে বলা হয় রাহুল যেদিন থেকে এনসিএ’র দায়িত্ব সামলাচ্ছেন সেদিন থেকে ইন্ডিয়া সিমেন্ট থেকে ছুটি নিয়েছেন। নিচ্ছে না বেতনও। তাই কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের প্রশ্ন ওঠে না। বিনোদ রাইয়ের নোট অনেকটাই আস্বস্ত করেছে এথিক্স অফিসারকে। পাশাপাশি ক্রিকেট মহলের প্রশ্ন যদি বারবার এই কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের প্রশ্ন তুলে রাহুল, সচিন, সৌরভের মত ক্রিকেটারের সাহায্য ভারতীয় ক্রিকেট না নেয় তাহলে ক্ষতি কার ? সবদিক দেখে এথিক্স অফিসার রাহুলের বিরুদ্ধে ওঠা কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের অভিযোগ খারিজ করতে চলেছেন বলেই সুত্রের খবর। 

আরও পড়ুন - দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বিরাটদের প্রথম পছন্দ ঋদ্ধি, বুমরার চোট নিয়ে তাড়াহুড়ো চায় না টিম ম্যানেজমেন্ট