কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগে ম্যাচ ফিক্সিং ও স্পট ফিক্সিং করার অপরাধে চলতি সপ্তাহেই বেঙ্গালুরু পুলিশ গ্রেফতার করছে ভারতীয় ঘরোয়া ক্রিকেটের দুই তারকা ক্রিকেটারকে। গ্রেফতার হয়েছেন কর্নাটকের উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান সিএম গৌতম ও  মিজোরামের অধিনায়ক আবরার কাজি। ভারতীয় ক্রিকেটে আবার ফিক্সিং আতঙ্ক তৈরি হওয়ায় নড়েচড়ে বসেছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। বেঙ্গালুরুর সেন্ট্রাই ক্রাইম ব্রাঞ্চের তদন্তের পাশাপাশি আলাদা করে গোটা ঘটনার তদন্ত করবে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। এমন কথাই জানালেন বিসিসিআইয়ের দুর্নীতি দমন শাখার প্রধান অজিত সিং। 

আরও পড়ুন - ভারত-বাংলাদেশ ভ্রাতৃত্বের বন্ধন, দিন রাতের টেস্টে ইডেন বেল বাজাবেন মমতা ও হাসিনা

একটি সংবাদপত্রকে দেওয়া ইন্টারভিউতে অজিত জানিয়েছেন। বেঙ্গালুরু পুলিশের তদন্ত যেমন চলার তেমনটাই চলবে। তারা চার্জশিট জমা দিলে সেটার একটি কপি নেবে ভারতীয় বোর্ড। সেটা নিয়ে আলাদা করে শুরু হবে তদন্ত। তবে এখনও চুপ করে বসে নেই তাঁরা। ফিস্কিং কান্ডে জড়িয়ে থাকার সন্দেহে একাধিক ব্যক্তিকে জেরা শুরু করেছে ভারতীয় বোর্ডের দুর্নীতি দমন শাখা। সেই তালিকায় কি আরও কোনও ক্রিকেটার আছেন, পরিস্কার করে গোটা বিষয়টি বলতে না চাইলেও অজিত সিং জানিয়েছেন, অনেক ব্যক্তিই আছেন। 

আরও পড়ুন - ফুরফুরে মেজাজে টিম ইন্ডিয়ার গব্বর, টিম হোটেলে শুরু করলেন অভিনয়

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের দায়িত্ব নিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী বোর্ডের দুর্নীতি দমন শাখার প্রধান বোর্ড সভাপতির সঙ্গে দেখা করে গত দুবছরের সমস্ত রিপোর্ট পেশ করবেন। এবার থেকে বিসিসিআই নিজেদের মত করেই দুর্নীতি দমনের কাজ দেখবে। তবে অজিত সিং নেমে নিচ্ছেন পুলিশের ক্ষমতা অনেক বেশি। পুলিশ প্রয়োজনে ফিক্সিংয়ের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা ব্যাক্তিদের গ্রেফতার করতে পারে। অজিতের আশা বর্তমানে যে ভাবে তদন্ত এগিয়ে যাচ্ছে তাতে আগামী বছরের কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগ অনেক বেশি স্বচ্ছ হবে। 

আরও পড়ুন - সৌরভের মুখে সত্যজিৎ-মৃণাল-ঋত্বিক, সিনেমা উত্সব মাতালেন দাদা