'এম এস ধোনি, দি আনটোল্ড স্টোরি'-তে কাজ করার জন্য দিন রাত এক করে পরিশ্রম করেছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত।  সিনেমা রিলিজের পর একবারের জন্য় কারও মনে হয়নি বড় পর্দায় যাকে দেখছেন তিনি ধোনি নন। মনে হয়েছিল এ যেন মাঠের ধোনি। একেবারে বাস্তব। তবে অন্য ব্যক্তির চারিত্রিক গুণাবলী সম্পূর্ণ নিজের মধ্যে নিয়ে আসা মোটেই সোজা কাজ ছিল না। আমরা সকলেই জানি ক্রিকেট খেলাটা সুশান্ত জানলেও, কিপিং শেখার জন্য এক বছরেরও বেশি সময় প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক কিরণ মোরের কাছে অনুশীলন করেছিলেন সুশান্ত। প্রতিদিন ৫-৬ ঘণ্টা অনুশীলন করতে প্রয়াত অভিনেতা। ধোনির ট্রেড মার্ক হেলিকপ্টার শট দিনে কয়েকশো বার করে অনুশীলন করতে সুশান্ত সিং রাজপুত।

আরও পড়ুনঃসুশান্তের মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ মহেন্দ্র সিং ধোনি

আরও পড়ুনঃসৌরভের বায়োপিকে অভিনয় করার স্বপ্ন ছিল সুশান্ত সিং রাজপুতের

শুধু খেলার গুণাবলী নয়, ধোনির চারিত্রিক বৈশিষ্ট রপ্ত করার জন্য় সিনেমার শুটিং শুরুর আগে বছর খানেক ধোনির সঙ্গে কাটিয়েছেন। তাঁর সঙ্গে কথা বলে চরিত্রের ভিতর ঢোকার চেষ্টা করেছেন। একথা ধোনি নিজেই বলেছেন। দুজনের একসঙ্গে কাটানো বেশ কিছু মুহুর্তের ছবিও প্রকাশ্যে এসেছিল। জানা গিয়েছে খুটিনাটি সব বিষয়ে ধোনিকে প্রশ্ন করত সুশান্ত। ধোনির, হাঁটা, চলা, কথা বলা, তাকানো, হাসি, শারীরিক ভঙ্গি সব কিছুই নিপুনভাবে পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছিলেন সুশান্ত। তাই ধোনিকে বার বার বিরক্তও করতেন তিনি। ধোনির সঙ্গে দীর্ঘ সময় কথা বলতেন সুশান্ত। যদি ধোনির কোনও উত্তর সুশান্তের পছন্দ হত না বা বুঝতে পারতেন না কিছুক্ষণ পর আবার সেই প্রশ্ন ধোনিকে ঘুরিয়ে করতেন সুশান্ত, এবং মন মত উত্তর পাওয়ার জন্য নিজের ভাগ্যকে পরীক্ষা করতেন। মজার বিষয় সুশান্তের প্রশ্ন বানে বিদ্ধ হতে হতে একবার মেজাজ হারিয়েছিলেন সদা শান্ত স্বভাবের ধোনিও। সুশান্তের দিকে চোখ পাকিয়ে বলেছিলেন,'আরে ভাই কত প্রশ্ন করিস তুই?' জবাবে মিষ্টি স্বভাবের সুশান্ত বলেছিলেন, 'ভাইসাব,সবাই আপনাকে আমার মধ্যে অনুসন্ধান করতে চলেছে, আপনার মতো করে আমাকেও তো সবকিছু করতে হবে'।

আরও পড়ুনঃসুশান্তের ব্যাটিং দেখে চমকে গিয়েছিলেন সচিন,দিয়েছিলেন পেশাদার ক্রিকেটার হওয়ার পরামর্শ

সুশান্তের সঙ্গে ধোনির এই স্মৃতি ছিল সুখের। কিন্তু রবিবারের দুপুর পাল্টে দিল সব কিছু। সেই সুখ স্মৃতিই এখন সারা জীবন বেদনা দেবে ধোনিকে। ধোনির বায়পিকের পরিচালক নীরজ পাণ্ডের কাছ থেকে সুশান্তের মৃত্যুর খবর পেয়ে শোকস্তব্ধ হয়ে পড়েছেন ধোনিও। কোনও কথা বলেননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও প্রতিক্রিয়াও দেনন। ধোনির ম্যানেজার জানিয়েছেন, এ এস ধোনি টু নিয়ে কাজ করার ইচ্ছে ছিল তাদের। সুশান্তের সঙ্গে কথাও হয়েছিল। কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুতে তা বাতিল করা হয়েছে। ফলে বাস্তবের মাটিতে আর রূপ পাবে না ধোনির পরবর্তী জীবনও।