ঝাকঝকে আকেশ মাথার ওপর নিয়ে বিশাখাপত্তনমে শুরু হয়েছিল ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম টেস্ট। গান্ধী ম্যান্ডেলা ট্রফির প্রথম দিন টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিতে কোনও ভুল কেরননি ভারত অধিনায়ক বিরোট কোহিল। প্রথম দল আগের দিনই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, তাই সেখানেও কোনও চমক ছিল না। সবাই তখন একটাই বিষয়ের অপেক্ষায়, টেস্ট ক্রিকেটে ‘ওপেনার’ রোহিতের অভিষেক। আর প্রথম দিনই সবার মুখের হাসি চওড়া করে দিলেন হিট ম্যান। ময়ঙ্ক অগরওয়ালকে সঙ্গে নিয়ে সাবধানী শুরু, তারপর নিজের মেজাজ ধারন করলেন। প্রথম সেশনে ভারতের একটাও উইকেট ফেলতে পারল না দক্ষিণ আফ্রিকা। 

আরও পড়ুন - রোহিতের ব্যাটিংয়ে ফিরল শেহওয়াগের স্মৃতি, প্রথম টেস্টেই শতরান ওপেনার রোহিতের

লাঞ্চের পরও ছবি বদলায়নি। বরং রোহিতের দাপট বেড়েই চললো। ১৫২ বলে শতরান করলেন। টেস্ট ওপেনার হিসেবে প্রথম, আর কেরিয়ারের চতুর্থ টেস্ট সেঞ্চুরি। ওপেনার রোহিতের এমন একটা ইনিংস দেখার অপেক্ষাতেই ছিলেন সবাই। সকিনিয়র পার্টনারকে পাশে পেয়ে ঘরের মাঠে প্রথম টেস্ট খেলতে নামা ময়ঙ্ক আগরওয়ালও ছন্দ পেয়ে গেলেন। আরও একটা হাফ সেঞ্চুরি এর তাঁর ব্যাট থেকে। সবই ঠিকঠাক চলছিল। ডবল সেঞ্চুরি করতে পারবেন রোহিত? তখন সবার মনে এই প্রশ্ন। কিন্তু পরিস্কার আকাশ ততক্ষণে কালো হতে শুরু করেছে। 

 

 

আরও পড়ুন - বয়েস ভাঁড়ানো রুখতে এবার হেল্প লাইন নাম্বার চালু করল ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড

চা পানের বিরতি শুরু হওয়ার আগে শুরু হয়ে গেল বৃষ্টি। সেই যে শুরু হল আর থামার নাম নেই। আকাশের অবস্থা বুঝে প্রথম দিনের খেলা শেষ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন আম্পায়াররা। প্রথম দিনের শেষে কোনও উইকেট না হারিয়ে ভারত থামল ২০২ রানে। রোহিত অপরাজিত ১১৫, ময়ঙ্ক অপরাজিত আছেন ৮৪ রানে। প্রথম দিন ৯০ ওভারের বদলে খেলা হল ৫৯.১ ওভার। দ্বিতীয় দিন ঝকঝকে আকাশ ও রোহিতের ব্যাটে একটা ডবল সেঞ্চুরির অপেক্ষায় আছে ভারতীয় ক্রিকেট। 

আরও পড়ুন - কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্টের নোটিস, এবার ইস্তফা দিলেন কপিল দেবও