করোনা ভাইরাস মহামারীর জেরে স্থগিত হয়ে গেল আরও একটি বিশ্বকাপ। এর আগে চলতি বছরে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টি২০ বিশ্বকাপ স্থগিত করেছে আইসিসি। সিদ্ধান্ত হয়েছে ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতেই হবে স্থগিত হওয়া টি২০ বিশ্বকাপ। আর ভারতের মাটিতে পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী হবে ২০২১-এর টি২০ বিশ্বকাপ। কিন্তু এবার করোনা ভাইরাসের কারণে পুরুষ নয় এক বছরের জন্য স্থগিত হয়ে গেল ২০২১-এ ৫০ ওভারের মহিলা বিশ্বকাপ।  

আরও পড়ুনঃ২০২১ সালের টি২০ বিশ্বকাপ হবে ভারতের মাটিতে, সিদ্ধান্ত আইসিসির

শুক্রবার সব টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে বসেছিল আইসিসি। সেই বৈঠকেই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে যে বিশ্ব মহামারীর কথা ভেবে ২০২১ সালে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে হতে চলা মহিলা বিশ্বকাপ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি। আগামী বছর ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ মার্চ পর্যন্ত হওয়ার কথা ছিল মহিলা বিশ্বকাপ। এদিন আইসিসির তরফ থেকে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানানো হয়েছে, 'বিশ্বজুড়ে করোনা ভাইরাস মহমারীর প্রভাব বিস্তার করার কারণে আইসিসি ২০২১ সালের মহিলা বিশ্বকাপ ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারহি মাস পর্যন্ত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।' প্লোরদের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত ঝুঁকির কথা ভেবেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার তরফ থেকে। ২০২২ সালে বিশ্বকাপের চূড়ান্ত সূচি পরবর্তী সময়ে আলোচনার মাধ্যমে ঠিক হবে বলা জানানো হয়েছে আইসিসির তরফে।

 

 

আরও পড়ুনঃঅবশেষে স্বস্তি ভক্তদের মনে, সাহিল-শুভ আসতে পারে এটিকে-মোহনবাগানে

আরও পড়ুনঃমাঠ লক্ষ্য করে ছুটে এল ঝাঁকে ঝাঁকে গুলি, ফের পাকিস্তানে ক্রিকেটের উপর জঙ্গি হামলা

কিন্তু বিশ্বকাপ পিছিয়ে যাওয়ায় চিন্তা বাড়ল ভারতীয় মহিলা দলের। ২০২১ বিশ্বকাপের জন্য ইতিমধ্যেই যোগ্যতা অর্জন করে ফেলেছে ভারতীয় মহিলা দল। ভারতীয় ব্যাটিং লেজেন্ড মিথালি রাজ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসর নিয়ে, ২০২১ বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। ২০২১ বিশ্বকাপের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন পেস বোলিং লেজেন্ড ঝুলন গোস্বামীও। সম্ভবত ২০২১ সালের বিশ্বকাপ খেলেই ক্রিকেটকে বিদায় জানাতেন দুই তারকা। কিন্তু বিশ্বকাপ এক বছর পিছিয়ে যাওয়ায় তাদের ভবিষ্যৎ নিয়েও প্রশ্ন তৈরি হল।