আসন্ন মরশুমের জন্য এটিকে-মোহনবাগান কর্তারা একে একে রিটেইন করে ফেলছে গত মরশুমের আইএসএল জয়ী এটিকে-এর খেলোয়াড়দের। স্বভাবতই মোহনবাগান সমর্থকদের মনে জাগছে প্রশ্ন, তাহলে কি আইলিগজয়ী দলের কোনও সদস্যকেই রাখবেন না নয়া সত্ত্বাবিশিষ্ট ফ্র্যাঞ্চাইজির কর্তারা। এক্ষেত্রে অধিকার যথেষ্টই কম মোহনবাগানের তরফের দুই বোর্ড অফ ডিরেক্টরস মেম্বার সৃঞ্জয় বসু এবং দেবাশিষ দত্তের। কিন্তু এবার শোনা যাচ্ছে গত মরশুমের মোহনবাগানের তরুণ প্রজন্মকে রাখার ক্ষেত্রে উদ্যোগ নিতে চলেছে এটিকে-মোহনবাগান কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুনঃআরও ২ বছরের জন্য এটিকে-মোহনবাগানেই থাকছেন এডু গার্সিয়া

গত মরশুমের আইএসএল-এ এটিকের হয়ে রয় কৃষ্ণা, প্রবীর দাসদের পাশাপাশি অনেক তরুণ ভারতীয় ফুটবলার মাঠে নজর কেড়েছিল। এবার মোহনবাগানের মত দলের সাথে যুক্ত হওয়ার পর তরুণ ফুটবলারদের সাপ্লাই লাইন অব্যাহত রাখতে মোহনবাগানের অ্যাকাডেমির চার আবিষ্কার – শুভ ঘোষ, শেখ সাহিল, কিয়ান নাসিরি এবং দীপ সাহাকে রাখতে চলেছে এটিকে-মোহনবাগান। মূলত সৃঞ্জয়-দেবাশিষের অনবরত সুপারিশের ফলে শেষ অবধি মোহনবাগানের এই চার তরুণ তুর্কিকে রাখার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত নিতে পারে এটিকে কর্তৃপক্ষ। শোনা যাচ্ছে শুধুমাত্র মোহনবাগানের তরুণ খেলোয়াড়দের রাখার ক্ষেত্রে জোর দিতে চাইছে বোর্ড অফ ডিরেক্টরস। এর ফলে কেরালা থেকে নংদোম্বা নাওরেমকে সম্ভব হলে লোনে আনারও ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিল তারা।

আরও পড়ুনঃএক মরশুম পরে ইপিএলে প্রত্যাবর্তন ফুলহ‍্যামের

আরও পড়ুনঃসন্তানলাভের খুশিতে হাসপাতালেই পার্টি দিলেন হার্দিক-নতাসা

গত মরশুমে মোহনবাগানের সিনিয়র দলের হয়ে নিজেদের জাত চিনিয়ে দিয়েছিলেন শুভ ও সাহিল। একের পর এক পরিবর্ত হিসাবে নেমে গোল করছিলেন শুভ ঘোষ। তার সঙ্গে মাঝমাঠে অসাধারণ খেলেছিলেন শেখ সাহিল। এদিকে মরশুমের শুরুতে ডুরান্ড কাপ ও জি বাংলা ট্রফিতে নজর কেড়েছিলেন দীপ সাহা এবং জামসিদ নাসিরির ছেলে কিয়ান নাসিরি। বেশ লম্বা সময়ের চুক্তিতে তাদের দলে রাখতে চাইছে এটিকে-মোহনবাগান কর্তৃপক্ষ।