অ্যডিলেড টেস্টে লজ্জার হারের পর দুরন্ত কামব্যাক টিম ইন্ডিয়ার। টেস্ট সিরিজে ঘুড়ে দাঁড়াল ভারতীয় দল। মেলবোর্নে বক্সিং ডে টেস্টে  গোটা ম্য়াচে আধিপত্য বজার রেখে ম্যাচ জিতল অধিনায়ক অজিঙ্কে রাহানের দল। বিরাট কোহলির অনুপস্থিতে দুরন্ত ব্যাটিং ও অধিনায়কত্বে সকলের নজর কাড়লেন রাহানে। বুঝিয়ে দিলেন অধিনায়কত্বের চাপ সামলানোর জন্য তৈরি তার কাঁধ ও ব্যাট। অপরদিকে, অ্যাডিলেডে প্রথম টেস্টে দুরন্ত জয়ের পর সিরিজ ৪-০ জেতার হুঙ্কার দিয়েছিলেন অনেক বর্তমান ও প্রাক্তন অস্ট্রেলিয় প্লেয়াররা। তবে ভারতীয় দলের যোগ্য জবাব সকলকে চুপ করিয়ে দিল।

মেলবোর্নে প্রথমে টস জিতে ব্য়াটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। ভারতী বোলারদের দাপটের কাছে মাত্র ১৯১ রানে শেষ হয়ে ব্যাগি গ্রিনদের ইনিংস। ভারতের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট নেন জসপ্রীত বুমরা। ৩টি উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, ২টি উইকেট পান মহম্মদ সিরাজ ও একটি উইকেট পান রবীন্দ্র জাদেজা। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সর্বোচ্চ ৪৮ রান করেন মার্নাস লাবুশাঙে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে পরপর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারত। সেই চাপের সময় অজিঙ্কে রাহানে দুরন্ত সেঞ্চুরি করে ভারতীয় দলকে চালকের আসনে বসিয়ে দেন। তাকে হাফ সেঞ্চুরি করে যোগ্য সঙ্গত দেন রবীন্দ্র জাদেজা। টিম ইন্ডিয়ার প্রথম ইনিংস শেষ হয় ৩২৬ রানে।  ১৩১ রানের লিড পায় মেন ইন ব্লুরা। 

দ্বিতীয় ইনিংসেও অব্যাহত থাকে অস্ট্রেলিয়ার বিযাটিং বিপর্যয়। ২০০ রানে শেষ হয়ে যায় অজিদের ইনিংস। ভারতের হয়ে ৩টি উইকেট নেন মহম্মদ সিরাজ। ২টি করে উইকেট পান  বুমরা অশ্বিন জাদেজা। একটি উইকেট পান উমেশ যাদব। ৬৯ রানের লিড নিয়ে, ভারতকে মাত্র ৭০ রানের টার্টেগ দেয় ব্যাগি গ্রিনরা। জবাবে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌছে যায় টিম ইন্ডিয়া। ৩৫ রান করেন শুভমান গিল ও ২৭ রান করেন রাহানে। দুই ইনিংসে ছোট হলেও উল্লেখযোগ্য ইনিংস খেলে নিজের জাত চেনান শুভমান গিলও। তবে  অধিনায়ক অজিঙ্কে রাহানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ সকলেই। এই দুরন্ত জয়ের ফলে সিরিজে ১-১ সমতা ফেরাল অজিঙ্কে রাহানের দল। একইসঙ্গে জয় দিয়ে বছর শেষ করল টিম ইন্ডিয়া।