শোয়েব আখতার এর তিন ম্যাচের সিরিজের প্রস্তাব উড়িয়ে দিলেন কপিল দেব। তিনি বলছেন এই পরিস্থিতির মোকাবিলার প্রয়োজনীয় অর্থ ভারতের আছে। এর মধ্যেই বিসিসিআই করোনা মোকাবিলায় নিজেদের সাধ্যমতো সাহায্য করেছে সরকারকে। বিসিসিআইয়ের তরফ থেকে ৫১ কোটি টাকা প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিলে দান করা হয়েছে। প্রয়োজন হলে আরও টাকাও দেওয়া হবে। এর মধ্যে ক্রিকেটারদের নামিয়ে তাঁদের ঝুঁকির মুখে ঠেলে দেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই বলে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক জানিয়েছেন। এছাড়াও আগামী পাঁচ-ছ মাস ক্রিকেটের কথা ভাবাই উচিত নয় বলে জানালেন তিনি।

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় ১০ কোটি টাকা অনুদান দিল আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি সানরাইজার্স হায়দরাবাদ 

ভারত এবং পাকিস্তান দুই দেশেই প্রচুর মানুষ করোনা ভাইরাসের দ্বারা সংক্রমিত হয়েছেন। দুই দেশেই প্রচুর মানুষ মারা যাচ্ছেন। এই সময় এমন অভিনব একটি প্রস্তাব দিয়েছিলেন শোয়েব আখতার। যদিও ২০১২ সালের পর থেকে নিজেদের মধ্যে আর কোন দ্বিপাক্ষিক সিরিজে অংশ নেয়নি দুই দেশ। দুই দেশের রাজনৈতিক সম্পর্কের বারংবার অবনতিই এর কারণ। শুধুমাত্র এশিয়া কাপ, বিশ্বকাপ, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মতো প্রতিযোগিতা গুলিতেই মুখোমুখি হয় দুই দল। এই অবস্থায় শোয়েব আখতার ৩ টি একদিনের ম্যাচের সিরিজ আয়োজনের প্রস্তাব প্রাক্তন পাক পেসারের।

আরও পড়ুনঃকরোনার জেরে স্থগিত হয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া বনাম বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ

আরও পড়ুনঃকরোনা মোকাবিলায় ফের ৩১০০ কেজি চাল বিতরণ করলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

পাকিস্তানের করোনা আক্রান্তদের সাহায্য করতে একটি ফান্ডও গঠন করেছিলেন শোয়েব আখতার। সেখানে সকলকে দান করতে আবেদন করেছিলেন তিনি। ভারতীয় ক্রিকেটার হরভজন সিং, বীরেন্দ্র সেওবাগরা দেশবাসীকে সেই ফান্ডে সাধ্যমতো দানের জন্য আহ্বান করেছিলেন। সেইজন্য তাদের সমালোচনার মুখেও পড়তে হয়েছে। কিন্তু তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন শোয়েব। তার মতে তিনি যখন ভারত থেকে রোজগার করেছেন ধারাভাষ্য বা অন্য কোনও শো থেকে তখন তার একটা নির্দিষ্ট অংশ তিনি ভারতের বস্তি অঞ্চলের দরিদ্র লোকেদের সাহায্যে লাগিয়েছেন।