রবিবার কটকে ভারত ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের শেষ ম্যাচ। প্রথম দুটি ম্যাচের মধ্যে একটি করে জয় পেয়েছে দুই দল। তাই তৃতীয় ম্যাচটাই সিরিজের ফয়সালা করবে। আর এই ম্যাচে দাপট দেখানোর মানসিকতা নিয়েই মাঠে নামতে চায় টিম ইন্ডিয়া। যে মানসিকতা দেখা গিয়েছিল বিশাখাপত্তনমে। চেন্নাইতে সিরিজের প্রথম ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে বিশাখাপত্তনমে রুদ্র মূর্তি ধারন করেছিলেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। তাই কাজটা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছিল বোলারদের কাছে। তৃতীয় ম্যাচেও সেই একই ধারা বজায় থাকবে, বলছেন দলের তরুণ ক্রিকেটার শ্রেয়স আইয়ার। বিশাখাপত্তনমে যেমন জোড়া শতরান করেছিলেন রোহিত ও রাহুল। তেমনই ব্যাট হাতে ঝড় তুলেছিলেন শ্রেয়স ও ঋষভ। বঙ্গোপসাগরের পারে আরও একবার সেই দাপট দেখতে চায় ভারতীয় ক্রিকেট। 

 

 

আরও পড়ুন - মানসিক চাপ থেকে মুক্তি চাই, ক্রিকেট থেকে অনির্দিষ্ট কালের ছুটিতে বিড়লা পুত্র আর্যমান

বিশ্বকাপের আগে ও বিশ্বকাপে দলের চার নম্বর ব্যাটসম্যান নিয়ে অনেক সমস্যা ও সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল ভারতীয় দলকে। কিন্তু বিশ্বকাপের পর থেকে এই জায়গায় শ্রেয়স আইয়ারকে রেখে এগিয়ে চলেছেন বিরাট-শাস্ত্রীরা। তাদের এই পরিকল্পনা যে সফল হতে পারে সেই ইঙ্গিত দিয়েছেন শ্রেয়স। টি-২০ ক্রিকেটার পাশাপাশি একদিনের ক্রিকেটেও দায়িত্ব নিয়ে খেলতে দেখা যাচ্ছে শ্রেয়স আইয়ারকে। তৃতীয় ম্যাচের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে এসে শ্রেয়স বলছেন, ‘কেরিয়ারের শুরু দিকে নিজের প্রতিভার ওপর বিশ্বাস রেখে খেলতাম। কিন্তু যত দিন এগিয়েছে ততই বুঝতে শিখেছি, শুধু প্রতিভার ওপর নির্ভর করে খেললে হবে না।  দলের প্রয়োজন মত দায়িত্ব নিয়ে খেলতে হবে।’ নিজের পারফরম্যান্সকে এভাবেই প্রকাশ করলেন শ্রেয়স। 

আরও পড়ুন - এনসিএ’কে সঠিক পথে নিয়ে আসার চ্যালেঞ্জ সৌরভ-রাহুলদের সামনে

টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং শেষ ম্যাচের আগে ছন্দে চলে এলেও বিরাট কোহিলকে ভাবতেই হবে দলের ফিল্ডিং ও মাঝের ওভারে বোলিং নিয়ে। চেন্নাইতে প্রথম ম্যাচে ভারতীয় দলের ফিল্ডাররা একাধিক ক্যাচ মিস করেন। রান আউটের সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। ম্যাচও হারতে হয়েছে ভারতকে। দ্বিতীয় ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা স্কোর বোর্ডে রানের পাহাড় তৈরি করায় খারাপ ফিল্ডিং জয়ের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। কিন্তু কটকে স্কোর বোর্ডে অনেক রান না থাকলে খারাপ ফিল্ডিং একটা বড় সমস্যা হয়ে উঠবে। এদিকে মাঝের ওভার গুলোতে প্রতিপক্ষের রানের গতি থামাতে না পারা একটা বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়াচ্ছে। সেদিকেও বাড়তি নজর দিতে হবে অধিনায়ক বিরাট কোহিল ও কোচ রবি শাস্ত্রীকে। 

আরও পড়ুন - সান্টা ক্লজ বিরাট কোহলি, বাচ্চাদের মুখে ফোটালেন হাসি