টিম ইন্ডিয়ার তিন পেসার প্রায় চার ঘন্টায় বাংলাদেশকে ১৫০ রানে গুটিয়ে দিয়েছে। অনেকেই মজা করে বলছেন টেস্ট ক্রিকেটের শিশুদের, শিশু দিবসের উপহার দিয়েছেন উমেশ, সামি, ইশান্তরা। টাইগারদের অল্প রানে গুটিয়ে দেওয়ার পর ভারতের একটাই লক্ষ্য ছিল। প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় তৈরি করা। যাতে দ্বিতীয় ইনিংসে আর ব্যাটিং করতে না হয়। সেই লক্ষ্যেই এখন এগিয়ে চলেছেন ময়ঙ্ক আগরওয়ালরা। প্রথম দিনের শেষে শুধু রোহিতের উইকেট হারিয়ে ৮৬ রান করেছিল ভারত। ক্রিজে ছিলেন মায়ঙ্ক ও পূজারা। 

 

 

আরও পড়ুন - ক্যারিবিয়ানদের ঘরের মাঠে টি২০ সিরিজ পকেটে পুরলো ভারতীয় মহিলা দল

দ্বিতীয় দিনের শুরু থেকে কিছুটা নিজের স্বভাব বিরুদ্ধ ভাবেই আক্রমণাত্মক মেজাজে ব্যাটিং শুরু করেছিল পূজি। ময়ঙ্কের আগেই অর্ধশতরান করেন তিনি। তারপরও আক্রমণের রাস্তাতেই হাঁটতে চাইছেল টিম ইন্ডিয়ার নাম্বার থ্রি। তবে ৫৪ রানে আউট হলেন তিনি। উল্টো দিকে জমে গেছেন ময়ঙ্ক। ক্রিজে এলেন অধিনায়ক বিরাট। কিন্তু কোহলির ইনিংস শুরু হওয়ার আগেই শেষ হয়ে গেল। আবু জায়েদের বল তাঁর প্যাডে লাগার পরও আম্পায়ার আউট দেননি। রিভিউ নিয়ে আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত বদলে দেয় বাংলাদেশ। শূন্য রানে ফিরে যান ভিকে। 

আরও পড়ুন - সিএবির অনুরোধে সিলমোহর, দিন রাতের টেস্টে কলকাতা সেজে উঠবে গোলাপী আলোয়

এরপর পালা ছিল সহ-অধিনায়ক রাহানের। তিনি ময়ঙ্ককে সঙ্গে নিয়ে বড় রানের পথে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। দ্বিতীয় দিনের প্রথম সেশনের খেলা শেষ হওয়ার সময় ভারত তিন উইকেট হারিয়ে ১৮৮ রান বোর্ডে তুলেছে। মায়ঙ্ক আরও একটা শতরানের পথে। ৯১ রানে ক্রিজে আছেন তিনি। অন্যদিকে রাহানে আছেন ৩৫ রানে। আপাতত ভারত এগিয়ে আছে ৩৮ রানে। এই পার্টানরশিপ টিকে গেলে বাংলাদেশ বোলারদের সমস্যার মুখে পরতেই হবে। এরপর আছেন, ঋদ্ধি, জাদেজা, অশ্বিনরা। 

আরও পড়ুন - ১০০ ম্যাচ খেলে রাজস্থান রয়্যালস ছাড়লেন রাহানে, নতুন ঠিকানা দিল্লি