নাম সিমি সিং। বাড়ি পঞ্জাবে। বর্তমানে তিনি আয়ারল্যান্ডের জাতীয় ক্রিকেট দলের নির্ভরযোগ্য প্লেয়ার। প্রধানত বোলার হলেও, দরকার মত ব্যাটটাও করতে জানেন। তার বড় হয়ে ওঠা কিন্তু ভারতেই। সিমি সিংয়ের আদি বাড়ি পঞ্জাবে। মোহালি স্টেডিয়ামের খুবই কাছে বাড়ি তার। ক্রিকেটে হাতেখড়িও এদেশেই। ছোট থেকে মোহালির স্টেডিয়ামে প্র্যাকটিস করেছেন। শুধু হাতেখড়ি নয়, পঞ্জাবের  অনূর্ধ্ব-১৫ ও ১৭ দলের হয়ে খেলেছেন বর্তমানে আয়ারল্যান্ড জাতীয় দলের প্লেয়ার। 

আরও পড়ুনঃআলো করে সংসারে এল নতুন অতিথি, মা-বাবা হলেন হার্দিক-নতাসা

পড়াশুনোর জন্য আয়ারল্যান্ডে যান সিমি সিং। সেখানে পড়াশুনোর পাশাপাশি অর্থ উপর্জনের জন্য স্টোরে কাজ করতেন। ক্রিকেট খেলতে ভালসাবসতেন, তাই ছুটির দিনগুলিতে ব্যাটে-বলে কিছুটা সান দিতেন। তাও অবশ্য লুকিয়ে। স্টোরে কাজে যোগ দেওয়ার পর ক্রিকেট যে তার কেরিয়ার হেব, সেই আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন সিমি সিং। কিন্তু ওই যে কথায় বলে অদৃষ্টের লিখন। তার ভাগ্যে ছিল তিনি ভারতের না হলেও, অন্য কোনও দেশের জাতীয় দলে খেলবেন। বাস্তবে হলও তাই। সিমি সিং নিজেও ভাবতে পারেননি স্টোরে কাজ করতে করতে তিনি একদিন জাতীয়  দলে জায়গা পেয়ে যাবেন।

আরও পড়ুনঃ২৪টি গোল্ড মেডেল জয়ী প্লেয়ার বর্তমানে দিনমজুর,সাহায্যের হাত বাড়ালেন ক্রীড়ামন্ত্রী

আরও পড়ুনঃসৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের ক্রিকেটে হাতেখড়ি তাঁর হাতে,প্রয়াত বর্ষীয়ান কোচ অশোক মুস্তাফি

সিমি সিং জানিয়েছেন,'আমি আয়ারল্যান্ডে এসেছিলাম পড়াশোনা করব বলে। আয়ারল্যান্ড আসার পর নিজের খরচ চালানোর জন্য স্টোরে কাজ করতাম। ছুটির দিনে ক্রিকেট খেলতাম। তবে সেটা কেউই জানত না। আমি এখানে এসে প্র্যাকটিস শুরু করি। তার পর একের পর এক ধাপ পেরিয়ে আয়ারল্যান্ডের জাতীয় দলে সুযোগ পাই। তবে জাতীয় দলের হয়ে খেলতে আমার ১২ বছর লেগেছে। এক-দুদিনে হয়নি। প্রতিটা স্তরের ক্রিকেটে আমাকে পারফর্ম করতে হয়েছে।'বর্তমানে দেশের হয়ে ১৮টি একদিনের ম্য়াচে ১৮টি উইকেট পেয়েছেন সিমি সিং। রান করেছেন ২৪২। পাশাপাষি টি২০ ক্রিকেটে দেশের হয়ে খেলেছেন ২৪ টি ম্যাচ, উইকেট পেয়েছেন ২১টি। ব্যাট হাতে তার অবদান ২০৭ রান। আগামী দিনে আয়ারল্যান্ডর হয়ে আরও ভাল ক্রিকেট খেলা ও দলকে জেতানোই মূল লক্ষ্য ভারতীয় সিমি সিংয়ের।