আইসিসি’র কোনও টুর্নামেন্ট ছাড়া ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে ক্রিকেট হওয়ার এখন আর কোনও সম্ভাবনা নেই। দুই দেশের সীমান্তে যে উত্তাপ ছড়িয়ে আছে তার আঁচ পায় গোটা বিশ্ব। কিন্তু দুই দেশের সধারাণ মানুষ? তাদের মনেও কি বিষ? অনেকের গবেষণাই বলছে না। দুই দেশের সাধারণ মানুষেই চান শান্তি ও সম্প্রীতি। আর দুই দেশের সাধারণ মানুষের সেই ইচ্ছের ছবিই এবার ধরা পরল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে ভারত বা পাকিস্তানে নয়। দুই দেশের মৈত্রীর ছবি দেখল অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেন। 

আরও পড়ুন - বাবা সৌরভের থেকে কী শিখেছেন মেয়ে সানা, মজার উত্তর ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়

পাকিস্তান ও অস্ট্রেলিয়ার প্রথম টেস্ট অনুষ্ঠিত হয়েছিল ব্রিসবেনে। সেই সময় পাঁচ জন পাক ক্রিকেটার হোটেল থেকে বেড়িয়েছিলেন বাইরের এক ভারতীয় রেস্তোরাঁয় ডিনার করার জন্য। যে ট্যাক্সিতে তারা উঠলেন সেটা চালাচ্ছিলেন এক ভারতীয় চালক। পাক ক্রিকেটারদের দেখে চিনতে পারেন তিনি। গন্তব্যে পৌছে দিয়ে পাক ক্রিকেটারদের থেকে ট্যাক্সি ভাড়া নেবেন না বলে জানান সেই চালক। ট্যাক্সি চালকের এই সৌজন্য দেখে খুশি পাক ক্রিকেটারার। তাই তারাও সেই চালককে খালি হাতে যেতে দিলেন না। নিজেদের সঙ্গে বসিয়ে নিলেন ডিনাল টেবিলে। একসঙ্গে খাওয়া দাওয়া করলেন পাঁচ পাক ক্রিকেটারও ও এক ভারতীয় ট্যাক্সি চালক। 

 

আরও পড়ুন - সংবিধান সংশোধনের পথে বোর্ড, সভাপতি পদে সৌরভের মেয়াদ বাড়ার পথ প্রশস্ত

এই ঘটনা সামনে নিয়ে এসেছেন অস্ট্রেলিয়ার এক মহিলা ধারাভাষ্যকার। সেই রাতের পরের দিনই ওই ভারতীয় ট্যাক্সি চালকের ট্যাক্সিতে ওঠেন এবিসি গ্র্যান্ডস্ট্যান্ড রেডিওর ধারাভাষ্যকার অ্যালিসন। গল্পের ছলেই আগের দিন রাতের কথা ধারাভাষ্যকারকে বলেছিলেন সেই ভারতীয় ট্যাক্সি চালক। সেই ঘটনা শুনে অ্যালিসেন সেটা রেডিওতে ধারাভাষ্য দেওয়ার সময় সবাইকে জানান। অ্যালিসনের পাশে তখন প্রাক্তন অজি ফআস্ট বোলার মিচেল জনসন। ভারত-পাকিস্তান বন্ধুত্বের সেই গল্প শুনে খুশি মিচেল জনসনও। এই গোটা গল্পটাই এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। দুই দেশের তিক্ত সম্পর্কের মাঝে এমন মৈত্রীর ছবি অনেকের কাছেই একটা আদর্শ গল্প। 

 

 

আরও পড়ুন - বদল করা হোক জাতীয় দল নির্বাচক কমিটি, সৌরভের কাছে আর্জি হরভজনের