আগামি ৯ তারিখ থেকে রাজকোটে শুরু হতে চলেছে বাংলা বনাম সৌরাষ্ট্রের রঞ্জি ট্রফি ফাইনাল। ম্যাচে পূর্ণশক্তির দল নিয়ে ঝাঁপাতে চাইছে উভয়পক্ষই। ফাইনালে বাংলার হয়ে খেলবেন জাতীয় দলের উইকেট রক্ষক ব্যাটসম্যান মনোজ তিওয়ারি। সৌরাষ্ট্রের হয়ে খেলবেন চেতশ্বর পুজারা, জয়দেব উনাদকাটের মত তারকারা। তারপরও ফাইনালে বাংলাকে চাপে রাখতে ও অ্যাডভান্টেজ নিতে রবীন্দ্র জাদেজাকে টিমে চেয়েছিলেন সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থা। যদিও সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থার আবেদনকে এককথায় নাকোচ করেছে দিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। তাদের স্পষ্ট বার্তা দেশ আগে।

আরও পড়ুনঃআইপিএলে ভেন্যু ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত, বোর্ডের সঙ্গে সংঘাতে ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলি

গত আট বছরে এই নিয়ে চারবাার রঞ্জি ট্রফির ফাইনালে পৌছেছে সৌরাষ্ট্র। ফাইনালে পূর্ণ শক্তির দল গড়তে রবীন্দ্র জাদেজার খেলার ছাড়পত্র চেয়ে বোর্ডের কাছে আবেদন করেছিলেন সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থার সভাপতি জয়দেব সাহ। কিন্তু ১২ তারিখ থেকে শুরু হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকার ভারত সফর। ফলে জাতীয় দলে থাকার কারণেই জয়দেব শাহের আর্জি পত্রপাঠ খারিজ করে দেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বলেন, বিসিসিআইয়ের পলিসি অনুযায়ী কান্ট্রি ফাস্ট। দেশ সবার আগে। জয়দেব শাহ জানিয়েছেোন, আমি সৌরভের সঙ্গে কথা বলেছিলাম। রঞ্জি ফাইনালকে আরও বেশি আকর্ষনীয় করতে জাদেজার খেলার ছারপত্র বোর্ডে কাছে চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু বোর্ড তা খারিজ করে দেয়। জানানো হয় রঞ্জির থেকে দেশের গুরুত্ব অনেক বেশি। তবে ঘরোয়া টুর্নামেন্টের প্রধান প্রতিযোগিতার ফাইনালের সময় আন্তর্জাতিক খেলার ক্রীড়াসুচি ফেলা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জয়দেব শাহ।

আরও পড়ুনঃফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চলেছেন এবিডি, ইঙ্গিত মার্ক বাউচারের

আরও পড়ুনঃসুখকর হল না রুনি-ম্যান ইউ রিইউনিয়ন, এফ এ কাপের শেষ আটে রেড ডেভিলসরা

বিসিসিআইয়ের এই সিদ্ধন্তে একপ্রকার ক্ষুব্ধ সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট সংস্থার সভাপতি। জানিয়েছেন, বিসিসিআই যদি সত্যিই রঞ্জি ট্রফিকে জনপ্রিয় করতে চায়. তাহলে সেই প্রতিযোগিতার ফাইনালের মত ম্যাচে যাতে তারকা প্লেয়াররা খেলতে পারে তার ব্যবস্থা করা উচিত। একই সময় দেশের খেলা রাখা ঠিক নয়। একইসঙ্গে আরও জুড়ে জয়দেব শাহ জানিয়েছেন, আইপিএলের সময় কিন্তু কোনও আন্তর্জাতিক ক্রীড়সুচি রাখা হয় না। কারণ আইপিএল থেকে টাকা আসে। শুধু জাদেজা নয়, বাংলার হয়ে মহম্মদ শামির খেলার পক্ষেও সওয়াল করেছেন জয়দেব শাহ। কারণ সকল ভাল প্লেয়াররা খেললেই আরও বেশি  জমজমাট হত ফাইনাল ম্যাচ। তবে নিজেদের সিদ্ধান্তে অনড় বিসিসিআই একটাই কথা জানিয়েছে , দেশ সবার আগে।