শেষ ইনিংসে মিলেমিশে গেল দুই ক্রিকেটারের জীবন, শুরু থেকে শেষ বেলার সাক্ষী রইল লর্ডসের মাঠ

| Sep 24 2022, 09:21 PM IST

শেষ ইনিংসে মিলেমিশে গেল দুই ক্রিকেটারের জীবন, শুরু থেকে শেষ বেলার সাক্ষী রইল লর্ডসের মাঠ

সংক্ষিপ্ত

শেষ হল 'চাকদহ এক্সপ্রেস'-এর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের যাত্রা। মিলেমিশে একাকার হয়ে গেল মহিলা ও পুরুষদের ক্রিকেটে বাংলার দুই সর্বোচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধির জীবনের 'শেষ ইনিংস'-এর গল্প। 

লর্ডসের মাঠজুড়ে দুই বাঙালি ক্রিকেটারের স্মৃতি। একজনের পথচলা শুরু, আর একজনের শেষ এই লর্ডসেই। এই মাঠেই শতরান করে টেস্ট কেরিয়ারের সূচনা করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। আর এই মাঠেই শেষ হল 'চাকদহ এক্সপ্রেস'-এর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের যাত্রা। মিলেমিশে একাকার হয়ে গেল মহিলা ও পুরুষদের ক্রিকেটে বাংলার দুই সর্বোচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধির জীবনের 'শেষ ইনিংস'-এর গল্প। 

সময়টা ২০০৮ সাল। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেওয়ার পালা 'দাদা'র। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে নিজের শেষ ইনিংস খেলতে নামেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। প্রথম বলেই আউট ভারতের প্রাক্তন অধিনায়ক। 

Subscribe to get breaking news alerts

১৪ বছর পর আবার সেই একই ছবি দেখতে পেল ক্রিকেট বিশ্ব। ২০২২ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে চলেছেন ঝুলন গোস্বামী। শনিবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে শেষ ইনিংস খেলতে নেমে প্রথম বলেই বোল্ড আউট ঝুলন। 

জীবনের শেষ ইনিংসে 'শূন্য'তার আর এক উদাহরণ ডন ব্র্যাডম্যান। যদিও তিনি আউট হয়েছিলেন দ্বিতীয় বলে। 
জীবনের শেষ ইনিংস খেলতে মাঠে নামছে ঝুলন। ব্যাট হাতে শেষবার মাঠে নামার সময় কী আবেগ ঘিরে ধরেছিল ঝুলনকে? জবাবে ঝুলনের স্পষ্ট জানান,"ক্রিকেট মাঠে আবেগের কোনও জায়গা নেই। আবেগকে সামলে রাখতেই হবে।" 

আরও পড়ুনকেরিয়ারের সাফল্য থেকে আক্ষেপ, অবসরের আগে মুখ খুলললেন ঝুলন গোস্বামী

দুই বাঙালি ক্রিকেটারের জীবনের সঙ্গেই মিলেমিশে রয়েছে লর্ডসের মাঠ। একজনের  টেস্ট কেরিয়ার শুরু, শতরান, অপর জনের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের শেষ ম্যাচের সাক্ষী হয়ে থাকল এই মাঠ।

আরও পড়ুন - বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্য়াচে দুরন্ত টিম ইন্ডিয়া, ৬ উইকেট অজিদের হারিয় সিরিজে সমতা ফেরাল ভারত

বিদায়ী ম্যাচ খেলতে নেমে আবেগ সামলে রাখলেন বরাবরের কৌশলী ঝুলন। দর্শকদের উদ্দেশ্যে বললেন, 'আমি সবসময় নিজের আবেগকে নিয়ন্ত্রণ করে এসেছি। এটাই আমার চরিত্র। কারণ আমি সবসময় আগ্রাসী ক্রিকেট খেলায় বিশ্বাসী। হার্ড ক্রিকেট খেলে মাঠে নিজের সেরা পারফরম্যান্স তুলে ধরাই আমার কাজ। আর সেই কাজটা গত ২০ বছর ধরে করে এসেছি। হরমন, স্মৃতির মতো সতীর্থরা অনেক বছর ধরে আমাকে খুব কাছ থেকে দেখছে। ওরা আমার উত্থান-পতন ও অনেক লড়াইয়ের সঙ্গী।' 

আরও পড়ুন- কোন মাঠে হবে ২০২৩ ও ২০২৫ সালের বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের মেগা ফাইনাল, ঘোষণা করল আইসিসি

Read more Articles on