গোটা বিশ্বে থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস। মারণ ভাইরাসের গ্রাস থেকে বাদ যায়নি নিউজিল্যান্ডও। কিউইদের দেশে ইতিমধ্যেই করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২৫০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। তবে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রাণহানির ঘটনা। পরিস্থিতি মোকাবিলাায় সবরকম প্রচেষ্টা করছে নিউজিল্যান্ড সরকার। কোভিড ১৯-এর সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সচেতনতার প্রচার চালানো হচ্ছে প্রশাসনের তরফে। আক্রান্তদের চলছে চিকিৎসা। সন্দেহভাজনদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে। বিদেশ থেকে আসা নাাগরিকদেরও কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। দেশোর করোনা পরিস্থিতি ও চিকিৎসকদের নিরলস পরিশ্রম নিয়ে এবার মুখ খুলনে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। ক্রিকেটে প্রায়ই শোনা যায় চাপের কথা। কিন্তু আসল চাপ কী, তা এখন বুঝতে পারছেন ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীরা। এমনই মনে করছেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

আরও পড়ুনঃকরোনা লড়াইয়ে মমতার পাশে অভিষেক ডালমিয়া, ৩০ লক্ষ টাকা দানের প্রতিশ্রুতি

নিউজিল্যান্ডের একটি সংবাদ পত্রিকায় করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ডাক্তার, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের উদ্দেশে কেন উইলিয়ামসন  লিখেছেন, “গত কয়েক দিনের ঘটনাপ্রবাহে পরিষ্কার যে, আমরা অভূতপূর্ব এক স্বাস্থ্য সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে চলেছি। আগামী কয়েক দিনে এর ব্যাপকতা আরও বাড়বে। আমরা তাই আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। অনেকে বলেন, ক্রীড়াবিদরা চাপের মধ্যে নিজেদের সেরাটা মেলে ধরতে পারেন। সত্যিটা হল, আমরা বেঁচে থাকার জন্য প্রতি দিন যা ভালবাসি, সেটা করি। আর আমরা একটা খেলায় অংশ নিই।”

আরও পড়ুনঃআগামী বছর থেকেই মহিলা আইপিএল শুরুর দাবি মিথালী রাজের

আরও পড়ুনঃকরোনা ভাইরাসের কারণে এবার এশিয়া কাপের ভবিষ্যৎও অনিশ্চিত

করোনা-যুদ্ধের আসল সৈনিকদের উদ্দেশে উইলিয়ামসন আরও লিখেছেন, “প্রাণ বাঁচিয়ে তোলাই হল সত্যিকারের চাপ। প্রতি দিন ব্যক্তিগত সুরক্ষাকে অন্যের ভালর জন্য প্রশ্নের মুখে ফেলাই হল চাপ। এই গুরুদায়িত্ব শুধুমাত্র সেরা মানুষরাই বহন করতে পারে। যাঁরা বৃহত্তর ভালকে সবার আগে রাখতে পারেন। তবে আমরা জানি, গোটা দেশের সমর্থন পিছনে থাকলে কতটা ভাল লাগতে পারে। সেই কারণেই জানাচ্ছি যে আপনারা মোটেই একা নন। পুরো দেশ আপনাদের সঙ্গে রয়েছে। আমরা এই সময়কে পার করে আসতে পারব। আর তার পিছনে আপনাদের অবদানই প্রধান।” চিকিৎসকদের কৃতজ্ঞতা স্বীকারের পাশাপাশি আক্রান্তদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক। একইসঙ্গে দেশবাসীক সচেতন থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন কেন উইলিয়ামসন।