দেশের করোনা পরিস্থিতি উব্দেগজনক হওয়ার কারণেই  আরব আমিরশাহিকে আইপিএলের জন্য নিরাপদ আশ্রয় বলে বেছে নিয়েছেন বিসিসিআই আধিকারিকরা। তবে করোনা আবহে প্লেয়ারদের স্বাস্থ্য নিয়ে কোনও রকম ঝুঁকি নিতে যে বিসিসিআই ও আইপিএলের গভর্নিং বডি রাজি সেই কথা প্রথম থেকেই বলা হয়েছে। তার জন্য এসওপিও তৈরি করা হয়েছে বিসিসিআইয়েরর পক্ষ থেকে। যেখানে নিয়মিত করোনা পরীক্ষী করার পাশাপাশি প্লেয়ারদের বায়ো বাবল অর্থাৎ জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যেই থাকতে হবে বলে নির্দেশ জারি করা হয়েছে। করোনা আবহে ক্রিকেট ফেরার পর থেকেই বায়ো বাবল কথাটা কথাটা এতটাই প্রচলিত হয়ে উঠেছে যে ক্রিকেটের সঙ্গ সমার্থক হয়ে উঠেছে।

আরও পড়ুনঃস্ত্রী ও মাকে নিজের হাতে খুন, আমেরিকায় গ্রেফতার ব্রোঞ্জজয়ী ভারতীয় ক্রীড়াবিদ

বায়ো বাবল মেনে চলার বিষয়টি অত্যন্ত সিরিয়াস হলেও, কেকেআরেরর তরফ থেকে এই বায়ো বাবল নিয়ে একটি মজাদার পোস্ট করা হল। আর কিছুই না গুরু গম্ভীর পরিবেশ কিছুটা হালকা করার চেষ্টা করা হল কলকাতা নাইট রাইডার্স। আসলে বায়ো-সিকিওর বাবলকে জোর্ব বলের সঙ্গে তুলনা করতে চেয়েছে কেকেআর। ২০১২ সালে ইডেনে নাইটদের প্রথম ম্যাচের আগে জোর্ব বল নিয়ে কারসাজি দেখিয়েছিলেন শিল্পিরা। সেই ছবি টুইটারে পোস্ট করে নাইট রাইডার্স। কেকেআরের তরফে ক্যাপশনে লেখা হয়, ‘কেউ কি বায়ো-সিকিওর বাবলের কথা বললেন? আমরা এই শিল্পের দক্ষতা অর্জন করেছি ইডেনে ২০১২-র উদ্বোধনী ম্যাচের সময় থেকে। যদি আপনার এটা মনে থাকে, তাহলে আপনি দীর্ঘদিন ধরে কেকেআরের অনুরাগী।’

 

 

আরও পড়ুনঃআরসিবির প্রথম টিম মিটিংয়েই ধমক বিরাট কোহলির, সকলকে দিলেন সতর্ক বার্তা

তবে বায়ো সিকোর বাবল নিয়ে কতটা কড়া বিসিসিআই তা বারবার বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে প্লেয়ারদের। বায়ো বাবল ভাঙলে প্লেয়ারদের শাস্তির মুখে পড়তে হবে বলেও জানানো হয়েছে। এমনকী প্লেয়ারদের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য চিপ ট্র্যাকার বসানোর ব্যবস্থাও করা হচ্ছে বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে। ইতিমধ্যেই করোনার নিয়ম ও বায়ো বাবল মেনে চলার জন্য গোটা দলকে নিয়ে বৈঠক করেছেন আরিসিবি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কিন্তু এই সবকিছুর মধ্যেই কেকেআরের এই মজাদার পোস্ট মনে ধরেছে সকলের।

আরও পড়ুনঃদীর্ঘ দু-দশকে লিও গড়েছেন অসংখ্য রেকর্ড, মেসি-বার্সা সম্পর্ক ইতির আবহে জেনি নিন সেই পরিসংখ্যান