বৃহস্পতিবার থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বদলে যাচ্ছে নো বলের নিয়ম। নো বলের ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ নতুন নিয়ম শুরু করছে বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। আজ থেকে ইংল্যান্ডের রোজ বোল ক্রিকেট গ্রাউন্ডে শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ড বনাম আয়ারল্যান্ডের তিন ম্যাচের এক দিনের সিরিজ। এই সিরিজ থেকে লাগু হচ্ছে নো বলেরর নতুন নিয়ম। অর্থাৎ আইসিসির ক্রিকেট বিশ্বকাপ সুপার লিগের সব খেলাই হবে এই নিয়ম মেনে। নো বলের নতুন নিয়ম অনুযায়ী এখন থেকে নোব বল ডাকবে টিভি আম্পায়ার বা থার্ড আম্পায়ার।

আরও পড়ুনঃরাফাল যুদ্ধবিমানকে দেশে স্বাগত জানালেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা

আইসিসির এই অভিনব নিয়মের ফলে দায়িত্ব কমতে চলেছে মাঠের আম্পায়ারের। পাশাপাশি প্রতি বলে দায়িত্ব বাড়তে চলেছে থার্ড আম্পায়ারের। আগে বোলারদের ওভার স্টেপের নো বল ডাকার দায়িত্ব থাকতো মাঠের আম্পায়ারদের। কোনও ক্ষেত্রে সমস্যা হলে থার্ড আম্পায়ারের কাছ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হত। বিশেষ করে অনেক সময় এলবিডব্লু বা উইকেট কিপারের কাছে ক্যাচ গেলে আম্পায়ার মাঠের আম্পায়ার দুটো জিনিস একসঙ্গে নজরে রাখতে সমস্যা হত। তখন সেই টিভি আম্পায়ের কাছেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য যেতে হত। এবার থেকে নো বল-এর ক্ষেত্রে বোলারের পায়ের দিকে নজর রাখবেন টিভি আম্পায়াররা। বোলিংয়ের সময় বোলারের পা ক্রিজে পড়ার ছবি কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে টিভি আম্পায়ারের কাছে চলে যাবে। তার পর মাঠের আম্পায়ারকে টিভি আম্পায়ার জানাবেন, নো বল ছিল কিনা!    

আরও পড়ুনঃনির্বাসনে পাঠানোর কারণ আজও অজানা মহম্মদ আজহারউদ্দিনের কাছে

আরও পড়ুনঃআচমকাই নতুন কোচ ঘোষণা ইস্টবেঙ্গলের, সমর্থকদের মধ্যে জোড় জল্পনা

এবার এই সমস্ত সমস্যা দূরে সরানোর জন্য নো বল ডাকার সিদ্ধান্ত পুরোপুরি থার্ড আম্পায়ারের হাতে দিয়ে দিল আইসিসি। বোলারের ওভার স্টেপিং দেখা দায়িত্ব এবার থেকে টিভি আম্পায়ারের। আইসিসি পরীক্ষামূলকভাবে ২০১৬ সালে এই নিয়ম চালু করে। এরপর ২০১৯ সালে ভারত-ওয়েস্ট ইন্ডিজ একদিনের সিরিজে এই নিয়ম ট্রায়াল হিসেবে দেখে নেয় আইসিসি। ২০২০ সালে মহিলাদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও 'ফ্রন্ট ফুট নো বল' ডাকার দায়িত্ব ছিল টিভি আম্পায়ারের। এবার থেকে আইসিসি সেই নিয়ম একদিনের ক্রিকেটের ক্ষেত্রে পুরোপুরি লাগু করে দিল। ভুল সিদ্ধান্ত কমানোর জন্যই ন ফ্রন্ট ফুট নো বল ডাকার দায়িত্ব টিভি আম্পায়ারকে দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে আইসিসির তরফে।